শিরোনাম
শিবালয়ে নিষিদ্ধ সময়ে যমুনার চরে দিনব্যাপী ইলিশের হাট দৌলতদিয়ার যৌনপল্লিতে যৌনকর্মীর রক্তাক্ত লাশ উদ্ধার- গোয়ালন্দে কৃষকদের বাধা উপেক্ষা করে প্রভাবশালী মহল মরাপদ্মায় ড্রেজার দিয়ে অবাধে মাটি উত্তোলন করছে দৌলতদিয়া ইউনিয়ন যুবলীগ সাধারণ সম্পাদক বহিস্কার গোয়ালন্দে ছাত্রলীগ নেতাকে মারধরের অভিযোগে উপজেলা সেচ্ছাসেবক লীগ সভাপতি আটক- গোয়ালন্দে ৭০০ গ্রাম গাঁজাসহ দুই জন আটক গোয়ালন্দ প্রবাসী ফোরামের উদ্যোগে অসচ্ছল মেধাবী শিক্ষার্থীদের মাঝে শিক্ষাবৃত্তি প্রদান রাজবাড়ীতে শেখ হাসিনার নির্দেশে মুক্তিযোদ্ধাদের মাঝে সম্মানি বিতরণ অবৈধ ড্রেজার ব্যবসায়ীকে জরিমানা, ৭টি ড্রেজার জব্দ গোয়ালন্দে অসহায় মানুষের মাঝে খাবার বিতরণ এমপি কন্যা চৈতীর উদ্যোগে

পাংশায় গ্রাহক না হয়েও বকেয়া বিদ্যুৎ বিলের দায়ে মামলা

রনি মন্ডল | রাজবাড়ী টেলিগ্রাফ / ৪৩ বার পড়া হয়েছে
সর্বশেষ আপডেট : রবিবার, ২৬ সেপ্টেম্বর, ২০২১

0Shares

স্টাফ রিপোর্টারঃ

রাজবাড়ীর পাংশায় বিদ্যুতের গ্রাহক না হয়েও বকেয়া বিলের দায়ে মামলা। এতে চরম হ্যানস্থা ও হয়রানির শিকার হচ্ছি বলে দাবি করেছেন মামলার বিবাদী ছোরাব মন্ডল। মিথ্যা মামলা দিয়ে পেশকারের মাধ্যমে অর্থ হাতিয়ে নেয়ার অভিযোগ পাংশা (বিদ্যুৎ) আবাসিক প্রকৌশলীর বিরুদ্ধে।

ছোরাব মন্ডল পাংশা পৌরসভার নয় নম্বর ওয়ার্ডের বড়গাছি গ্রামের (সিটিসেল টাওয়ার সংলগ্ল) উস্তার মন্ডলের ছেল।

ছোরাব মন্ডল বলেন, বিদ্যুত বিল বকেয়ার দায়ে গত ৮ সেপ্টেম্বর ফরিদপুর বিউবো জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট থেকে আমার নামে সমন আসে। আমার নামে বিদ্যুতের কোন মিটার না থাকায় আমি পাংশা আবাসিক প্রকৌশলীর সাথে যোগাযোগ করলে তিনি অফিসে ডাকেন। অফিসে গেলে প্রকৌশলী বলেন, মামলাটি ভুল বসত হয়ে গেছে আমি আপনাকে সার্বিক সহযোগীত করব। আপনি আমাদের পেশকারের সাথে যোগাযোগ করেন সমস্য সমাধান হয়ে যাবে। আমি পেশকারের কাছে গেলে তিনি আমার কাছে ৩০ হাজার টাকা দাবি করেন।
পরে আমি একজন এ্যাডভোকেটের সাথে আলোচনা করলে তিনি বলেন, প্রকৌশলী যদি ভুল শিকার করে থাকে তাহলে একটি প্রত্যায়নপত্র লিখে দিলে আপনার মামলাটি খারিজ হয়ে যাবে। পরে আমি প্রকৌশলীর কাছে প্রত্যায়নপত্র চাই। তিনি প্রত্যায়নপত্র দেওয়ার কথা বলে অফিসে ডেকে নিয়ে বলেন, আপনি এ বিষয় নিয়ে বেশি বাড়াবাড়ি করলে আরও বেশি ঝামেলায় পরবেন।

এ বিষয়ে পাংশা আবাসিক প্রকৌশলী (বিদ্যুত) মো. রিয়াদ হোসেন বলেন, আমরা অনেক দিন ধরে সিটিসেল টাওয়ার কর্তৃপক্ষের সাথে যোগাযোগের চেষ্টায় ব্যর্থ হয়েছি। আমি খোজ নিয়ে জানতে পারি সিটিসেল টাওয়ারটি ছোরাব মন্ডলের জমির উপর এবং টাওয়ারের সাথে তার সম্পৃক্ততা আছে। একারণে তার নামে মামলা করা হয়েছে। তবে মিটার নম্বর ও বিলের পরিমান কত টাকা যানতে চাইলে কোনটাই দেখাতে পারেনি তিনি।

এই হ্যানস্থা ও হয়রানি থেকে মুক্তি চায় মামলার বিবাদী ছোরাব মন্ডল। তিনি আরোও বলেন, আমার নামে যদি কোন মিটার বা বিল থাকে আমি পরিশোধ করব। আর যদি আবাসিক প্রকৌশলী কোন কিছু না দেখাতে পারে তাহলে আমাকে যে, হ্যানস্থা ও হয়রানি করা হচ্ছে আমি এর বিচার চাই।

Facebook Comments


এ জাতীয় আরো খবর
NayaTest.jpg