শিরোনাম
গোয়ালন্দ প্রবাসী ফোরামের উদ্যোগে অসচ্ছল মেধাবী শিক্ষার্থীদের মাঝে শিক্ষাবৃত্তি প্রদান রাজবাড়ীতে শেখ হাসিনার নির্দেশে মুক্তিযোদ্ধাদের মাঝে সম্মানি বিতরণ অবৈধ ড্রেজার ব্যবসায়ীকে জরিমানা, ৭টি ড্রেজার জব্দ গোয়ালন্দে অসহায় মানুষের মাঝে খাবার বিতরণ এমপি কন্যা চৈতীর উদ্যোগে জাঁকজমকপূর্ণ আয়োজনের মাধ্যমে শেষ হলো রাজবাড়ী সার্কেল আয়োজিত ইসলামিক কুইজ প্রতিযোগিতা ২০২১ করোনা ভাইরাস থেকে পরিত্রাণের জন্য রাজবাড়ী সার্কেলের বিশেষ দোয়া মাহফিল গোয়ালন্দে প্রধানমন্ত্রীর ঈদ উপহার নতুন পোশাক পেল সুবিধাবঞ্চিত শিশুরা দৌলতদিয়ায় হেরোইনসহ ৩ জন আটক রাজবাড়ী জেলা প্রশাসনের উদ্যোগে ভ্রাম্যমান আদালতে ব্যবসায়ীসহ ৫জনকে অর্থ জরিমানা পশ্চিম আকাশে চাঁদ দেখা গিয়াছে, আগামীকাল থেকে রোজা শুরু 

গোয়ালন্দ নামের উৎপত্তি ও ‘ভাদাইমা মোড়’ থেকে ‘পল্লীবাজার’

রাজবাড়ী টেলিগ্রাফ ডেস্ক / ৬৩৯ বার পড়া হয়েছে
সর্বশেষ আপডেট : রবিবার, ২ আগস্ট, ২০২০

0Shares

গাজী সাইফুল ইসলাম ||

অতি সম্প্রতি রাজবাড়ীর গোয়ালন্দ উপজেলার উজানচর ইউনিয়নের হাজী আবদুর গফুর মন্ডল পাড়ার একটি মোড়ের নাম ভাদাইমোড় থেকে পল্লীবাজার করা হয়েছে। কিভাবে হলো এই পল্লীবাজারের নামকরণ? তার আগে জেনে নিই আমাদের গোয়ালন্দের ইতিহাস।

গোয়ালন্দের উৎপক্তি ও ইতিহাস:

এলাহাবাদ চুক্তি অনুসারে ১৭৬৫ সালে ইংরেজরা বাংলা, বিহার, উড়িষ্যা দেওয়ানী লাভের পর উত্তর পশ্চিম ফরিদপুর (বর্তমানে রাজবাড়ী জেলার কিয়দংশ) অঞ্চল রাজশাহীর জমিদারি অন্তর্ভুক্ত ছিল। নাটোর রাজার জমিদারি চিহ্ন হিসাবে রাজবাড়ী জেলার বেলগাছিতে এখনও রয়েছে সানমঞ্চ, দোলমঞ্চ।

১৮১১ সালে ঢাকা থেকে ফরিদপুর জেলা সৃষ্টি হলে রাজবাড়ীকে এর অন্তর্ভুক্ত করা হয়। পাংশা থানা তখন পাবনা জেলার অন্তর্ভুক্ত ছিল।

১৮৫৯ সালে পাংশা ও বালিয়াকান্দি নবগঠিত কুমারখালি মহকুমার অধীনে নেয়া হয়। পরবর্তীকালে ১৮৭১ সালে গোয়ালন্দ মহকুমা গঠিত হলে পাংশা,রাজবাড়ী নবগঠিত গোয়ালন্দ মহকুমার এর সঙ্গে যুক্ত হয় এবং এই গোয়ালন্দ মহকুমারের সদর দপ্তর স্থাপিত হয় রাজবাড়ীতে।

আঠার শতাব্দীর শেষভাগে কুঁশাহাটা ঘাটে গোয়ালন্দের গোড়াপত্তন হয়েছিল। কবিগুরু রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের ‘যোগাযোগ ও নৌকাডুবি’ উপন্যাসে গোয়ালন্দের কথা উল্লেখ করেছেন।

পদ্মা, যমুনার যৌবন জৌলুসের দিনে এক জীঘাংসু প্রকৃতির গন্জালিস নামে এক জলদস্যুর বিচরণ ছিল এ অঞ্চলে। গন্জালিস নামের এ জলদস্যু পদ্মা, মেঘনা, যমুনায় ডাকাতি করে বেড়াত। যতদূর জানা যায় তার নামানুসারেই গন্জালিস থেকে কালক্রমে গোয়ালন্দ নামের উৎপত্তি।

তবে গোয়ালন্দ নামকরণে ভিন্নমতও রয়েছে। কারো কারো মতে এ এলাকায় অনেক গোয়ালার (ঘোষ সম্প্রদায়) বাস ছিল। সে সময় নন্দন নামের এক গোয়ালার পুত্রের কর্মকান্ড ব্যাপক আলোচিত ছিল। ধারণা করা হয় তার নাম অনুসারেই গোয়াল নন্দ থেকে গোয়ালন্দ নামে উৎপত্তি।

ভাদাইমা মোড় থেকে পল্লী বাজার:

২০০২ সালের কথা। গোয়ালন্দের উজানচরে হাজী আবদুর গফুর মন্ডল পাড়ার দক্ষিণাংশে রাস্তার মোড়ে ছামাদ নামে একজন মুদি দোকান দেন। তখন সবাই মোড়টাকে ছামাদের দোকান বলত। ২০০৬ সালের দিকে দোকানটি বন্ধ হয়ে গেলে সেখানে এরশাদ নামে আরেকজন মুদি দোকান দেন। আস্তে আস্তে এলাকাটি এরশাদের মোড় হিসাবে পরিচিতি হতে থাকে।

এদিকে স্থানীয় আইয়ুব চকিদার (বর্তমানে দফাদার), ওমর শেখ, আলা সাধু সহ বেশকিছু যুবক মোড়ে নিয়মিত গান, বাজনা, আড্ডা দিত। এদের তেমন কাজকর্ম ছিল না। আশেপাশের অকর্মা, সংসার ত্যাগী লোকজনের বিচরণ বাড়তে থাকে এরশাদের মোড়ে।

ফলে স্থানীয় লোকজন মোড়টিকে কাজকর্মহীন মানুষের আড্ডা খানাকে’ ভাদাইমা মোড় হিসাবে আখ্যায়িত করে। ধীরে ধীরে মোড়টি ভাদাইমা মোড় হিসাবে ব্যাপক পরিচিতি লাভ করে।

পাশ্ববর্তী এলাকার লোকজন ভাদাইমার মোড়ের লোকজন কে দেখলে ব্যঙ্গ ও উপহাসের সুরে কথা বলে অপমানিত করতে থাকে।

ফলে অপমানজনক এ পরিস্থিতি থেকে বেরিয়ে আসতে এগিয়ে আসেন সৌদি প্রবাসী মো: শাহিদুল ইসলাম (শাহীন)। তিনি ভাদাইমা মোড়ের নাম পরিবর্তনের উদ্যােগ নিলে সহযোগিতা করেন স্থানীয় জুয়েল, কামাল, সুজাত, এখলাছ লিটনসহ বেশকিছু মননশীল তরুন। ডাকা হয় মিটিং। মিটিং এ শাহিনের দেয়া নামের প্রস্তাব গৃহীত হয়।

সৌদি প্রবাসী মো: শাহিদুল ইসলাম( শাহীন)

সৌদি প্রবাসী মো: শাহিদুল ইসলাম( শাহীন)

২০২০ সালে জানুয়ারিতে স্থানীয় জনপ্রতিনিধি সহ এলাকার জনগণের উপস্থিতিতে নাম ফলক উন্মোচিত হয়।

সুন্দর একটি নামকরণের মধ্যে দিয়ে যাত্রা শুরু হয় ভাদাইমা মোড় থেকে পল্লীবাজারের।

লেখক, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ইতিহাস বিভাগের সাবেক শিক্ষার্থী এবং সম্পাদক ও প্রকাশক, রাজবাড়ী টেলিগ্রাফ।

Facebook Comments


এ জাতীয় আরো খবর
NayaTest.jpg