শিরোনাম
গোয়ালন্দ প্রবাসী ফোরামের উদ্যোগে অসচ্ছল মেধাবী শিক্ষার্থীদের মাঝে শিক্ষাবৃত্তি প্রদান রাজবাড়ীতে শেখ হাসিনার নির্দেশে মুক্তিযোদ্ধাদের মাঝে সম্মানি বিতরণ অবৈধ ড্রেজার ব্যবসায়ীকে জরিমানা, ৭টি ড্রেজার জব্দ গোয়ালন্দে অসহায় মানুষের মাঝে খাবার বিতরণ এমপি কন্যা চৈতীর উদ্যোগে জাঁকজমকপূর্ণ আয়োজনের মাধ্যমে শেষ হলো রাজবাড়ী সার্কেল আয়োজিত ইসলামিক কুইজ প্রতিযোগিতা ২০২১ করোনা ভাইরাস থেকে পরিত্রাণের জন্য রাজবাড়ী সার্কেলের বিশেষ দোয়া মাহফিল গোয়ালন্দে প্রধানমন্ত্রীর ঈদ উপহার নতুন পোশাক পেল সুবিধাবঞ্চিত শিশুরা দৌলতদিয়ায় হেরোইনসহ ৩ জন আটক রাজবাড়ী জেলা প্রশাসনের উদ্যোগে ভ্রাম্যমান আদালতে ব্যবসায়ীসহ ৫জনকে অর্থ জরিমানা পশ্চিম আকাশে চাঁদ দেখা গিয়াছে, আগামীকাল থেকে রোজা শুরু 

গোয়ালন্দের উজানচরে ক্যান্সারে আক্রান্ত স্ত্রীকে বাঁচাতে স্বামীর আকুতি

রনি মন্ডল | রাজবাড়ী টেলিগ্রাফ / ৯৭ বার পড়া হয়েছে
সর্বশেষ আপডেট : বৃহস্পতিবার, ১৭ জুন, ২০২১

0Shares

ভয়াবহ মরণব্যাধির নাম ক্যান্সার। এটা থেকে মুক্তির উপায় আছে, কিন্তু তার জন্য প্রয়োজন সময় মতো চিকিৎসার ও অর্থের। এর চিকিৎসা খরচ অনেক বেশি হওয়ায় বহু রোগী মারা যায়। তাই সমাজের বিত্তবান থেকে শুরু করে সবাই যদি সাধ্যমতো সাহায্যের হাত বাড়ায় তাহলে বেঁচে যেত অনেক প্রাণ।

কথা বলছি গোয়ালন্দ উপজেলার উজানচর ইউনিয়নের ৬ নং ওয়ার্ডের সাহাজউদ্দিন মাতব্বর পাড়া এলাকার দিনমজুর আমজাদ জোয়াদ্দারের স্ত্রী সালমা বেগম ২৮। সালমা বেগম দীর্ঘদিন যাবত অসুস্থ তিনি চিকিৎসার জন্য ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে যান । চিকিৎসকরা তাকে চিকিৎসার জন্য বিভিন্ন পরীক্ষা-নিরীক্ষা দেন। পরীক্ষা নিরীক্ষায় দেখা গেছে তার পিত্তথলিতে টিউমার। তাদের পরিবার থেকে সিদ্ধান্ত নেয় টিউমার অপারেশনের জন্য। টিউমার থেকে বের হয় অনেক পাথর। তারপরেও সালমা বেগম সুস্থ হয়ে ওঠেন নি তার ব্যথা কমেনি। পরবর্তীতে সালমা বেগম আবার ডাক্তারের সাথে যোগাযোগ করলে বিভিন্ন পরীক্ষা-নিরীক্ষা দেখে চিকিৎসক বলেন আপনার পেটে ক্যান্সারের জীবাণু দেখা গেছে।

দিনমজুর আমজাতের সংসারে তার স্ত্রী সালমা বেগম ক্যান্সারে আক্রান্ত হওয়ার পর থেকে আমজাদের সাধ্য অনুযায়ী স্ত্রীর জন্য চিকিৎসা করেছেন।

সালমা বেগম কে ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল থেকে দেয়া হচ্ছে কেমোথেরাপি। চিকিৎসক বলেছে বারোটি কেমোথেরাপি দিতে হবে এ পর্যন্ত দেয়া হয়েছে কেমোথেরাপি দুইটি।
প্রত্যেকটি কেমোথেরাপিতে এ দারিদ্র পরিবারের জন্য খরচ ধরা হয়েছে ১৮ হাজার টাকা করে।

দিনমজুর আমজাদ পরিবারের জন্য চালডাল কিনবেন নাকি স্ত্রীর চিকিৎসা করবেন এ নিয়ে হতাশায় ভুগছেন তিনি।

সালমা বেগম তিন সন্তানের জননী, বড় ছেলে নাম সোহেল বয়স ১৪ মেজো ছেলে রানা বয়স নয় ছোট মেয়ে ময়না ৯ মাস বয়স।

এত কম বয়সে মা মরণব্যাধি ক্যান্সারে ভুগছে সন্তানরা দুশ্চিন্তায় ভুগছেন।

স্ত্রী সালমা বেগম কে বাঁচাতে স্বামী দিনমজুর আমজাদ জোয়াদ্দার সাহায্যের জন্য মানুষের দ্বারে দ্বারে ঘুরছেন।

তিন সন্তানের জননী সালমা বেগম কে বাঁচাতে সহযোগিতা করুন। স্বামী দিনমজুর আমজাদ এর পার্সোনাল বিকাশ ০১৭০৫০৩৩৭২৭

Facebook Comments


এ জাতীয় আরো খবর
NayaTest.jpg