শিরোনাম
মুন্নু মেডিকেলে বিলের জন্য আটকে রাখল শিশু রোগীকে, অতঃপর মৃত্যু মাজারের সামনের অবৈধ ভাবে বসতবাড়ি করার পায়তারা, এলাকাবাসীর বাঁধা  দৌলতদিয়া যৌনপল্লী থেকে দৌড়ে পালালেন এসআই নির্বাচিত চেয়ারম্যানকে দুধ দিয়ে গোসল করালেন এলাকাবাসী  রাজবাড়ীতে মাদক মামলায় দুই মাদক ব্যবসায়ীর যাবজ্জীবন কারাদণ্ড বালিয়াকান্দিতে প্রতিপক্ষের হামলায় আনারস প্রতীকের কর্মী আহত  চালককে হত্যা করে মোটরসাইকেল ছিনতাই : চারজনের যাবজ্জীবন খাবারের মেয়াদ নিয়ে বনফুলের এ কেমন প্রতারণা! বালিয়াকান্দিতে দুই চেয়ারম্যান প্রার্থীর সমর্থকদের সংঘর্ষের ঘটনায় পাল্টাপাল্টি অভিযোগ  চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে জেলেদের ভিজিএফের চাল আত্মসাতের অভিযোগ

গ্রামীণ জনগোষ্ঠীর উন্নয়নে মহিলা সমাবেশ অনুষ্ঠিত

ষ্টাফ রিপোর্টার | রাজবাড়ী টেলিগ্রাফ / ২৬১ বার পড়া হয়েছে
সর্বশেষ আপডেট : মঙ্গলবার, ১৫ জুন, ২০২১

0Shares

মো: সজল আলী, মানিকগঞ্জ :
গ্রামীণ জনগোষ্ঠীর উন্নয়নে প্রচার কার্যক্রম শক্তিশালীকরণ প্রকল্পের আওতায় মানিকগঞ্জের ঘিওর উপজেলায় দুইটি মহিলা সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে।
সোমবার (১৪ জুন) বিকেলে জেলা তথ্য অফিসের উদ্যোগে উপজেলার বানিয়াজুরি ও তরা গ্রামে পৃথক পৃথক দুইটি মহিলা সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়।
অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন জেলা তথ্য কর্মকর্তা মোহাম্মদ নূর হোসেন।
মানিকগঞ্জ ন্যাশনাল পলিটেকনিক ইনষ্টিটিউটের অধ্যক্ষ ড. মোহাম্মদ ফারুক হোসেনের সভাপতিত্বে অন্যানের মধ্যে বক্তব্য রাখেন ঘিওর উপজেলা মানব সম্পদ উন্নয়ন কেন্দ্রের সভাপতি মো. আবদুল্লাহ সহ স্থানীয় জন প্রতিনিধিরা।
গ্রামীণ জনগোষ্ঠীর উন্নয়নে প্রচার-প্রচারণামূলক এ সমাবেশে করোনা ভাইরাস সংক্রমণ রোধ, মাননীয় প্রধান মন্ত্রীর ১০টি বিশেষ উদ্যোগ, সামাজিক নিরাপত্তা কর্মসুচী, নারীর ক্ষমতায়ন, পরিবেশ সুরক্ষাসহ মাদকের ভয়াবহতা, বাল্য বিবাহ ও সন্ত্রাস বিরোধী কার্যক্রম প্রতিরোধে প্রচার ও জনসচেতনতা সৃষ্টিতে আলোচনা করা হয়।
সমাবেশে এলাকার নানা বয়সী দুই শতাধিক নারী অংশ গ্রহণ করেন।
এ সময় জেলা তথ্য কর্মকর্তা মোহাম্মদ নূর হোসেন বলেন, করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে নিয়মিত অন্তত ২০ সেকেন্ড ধরে ভালো করে বারবার হাত ধোবেন হাতে ময়লা বা নোংরা দেখা না গেলেও বারবার হাত ধুতে পারেন। খাবার প্রস্তুত ও পরিবেশনের আগে, টয়লেট ব্যবহারের পর, পশুপাখির পরিচর্যার পর।
বাল্যবিবাহের কুফল ও প্রতিরোধে তিনি বলেন, শারীরিক গঠন পূর্ণাঙ্গ হওয়ার আগেই বিয়ে অতঃপর সন্তান জন্ম দেওয়ার কারণে বাল্যবধূরা পুষ্টিহীনতায় ভোগে। গর্ভধারণের বয়সে উন্নীত হওয়ার আগেই অল্প বয়সী বালিকাদের বিয়ে দিলে পরবর্তী সময়ে যে গর্ভসঞ্চার হয়, তা নবজাতক ও মা উভয়ের জন্যই বিপজ্জনক ও ক্ষতিকর হতে পারে। এজন্য সকলের সম্মিলিত প্রচেষ্টার মাধ্যমে বাল্যবিবাহ প্রতিরোধ করতে হবে।
মাদক ও সন্ত্রাসের কুফল তুলে ধরে তিনি আরোও বলেন, সন্তান মাদকাসক্ত বা সন্ত্রাসের সঙ্গে জড়িয়েছে কি না তা প্রথমত মা-বাবার দেখার দরকার, এরপর নজরদারিতে রাখার দরকার শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের। আপনাদের সন্তানের মধ্যে এমন কিছু দেখলে স্থানীয় প্রশাসনকে জানান। আমরা কাউন্সিলিং এর মাধ্যমে তাদের সুপথে ফিরিয়ে আনার চেষ্টা করব।

Facebook Comments


এ জাতীয় আরো খবর
NayaTest.jpg