শিরোনাম
গোয়ালন্দে একদিনে নারীসহ ১৩ আসামি গ্রেপ্তার পাটুরিয়া ঘাটে গাড়িসহ ফেরি ডুবি- এক ঘণ্টার জন্য গোয়ালন্দ উপজেলার ইউএনও হলেন বাবলী- শিবালয়ে নিষিদ্ধ সময়ে যমুনার চরে দিনব্যাপী ইলিশের হাট দৌলতদিয়ার যৌনপল্লিতে যৌনকর্মীর রক্তাক্ত লাশ উদ্ধার- গোয়ালন্দে কৃষকদের বাধা উপেক্ষা করে প্রভাবশালী মহল মরাপদ্মায় ড্রেজার দিয়ে অবাধে মাটি উত্তোলন করছে দৌলতদিয়া ইউনিয়ন যুবলীগ সাধারণ সম্পাদক বহিস্কার গোয়ালন্দে ছাত্রলীগ নেতাকে মারধরের অভিযোগে উপজেলা সেচ্ছাসেবক লীগ সভাপতি আটক- গোয়ালন্দে ৭০০ গ্রাম গাঁজাসহ দুই জন আটক গোয়ালন্দ প্রবাসী ফোরামের উদ্যোগে অসচ্ছল মেধাবী শিক্ষার্থীদের মাঝে শিক্ষাবৃত্তি প্রদান

শিক্ষকদের নিকট ঘুষের দাবি, পাটগ্রামে হিসাবরক্ষণ কর্মকর্তাকে অবরুদ্ধ

রনি মন্ডল | রাজবাড়ী টেলিগ্রাফ / ১২৮ বার পড়া হয়েছে
সর্বশেষ আপডেট : মঙ্গলবার, ৪ মে, ২০২১

0Shares

লালমনিরহাট প্রতিনিধিঃ
লালমনিরহাটের পাটগ্রাম উপজেলা হিসাবরক্ষণ কর্মকর্তা সিরাজুল ইসলামকে ঘন্টাব্যাপী অবরুদ্ধ করে রাখে উপজেলার প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শতাধিক শিক্ষক। মঙ্গলবার (০৪ মে) দুপুরে এ ঘটনা ঘটে। এ সময় শিক্ষকরা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসারের কার্যালয়ও ঘেরাও করে বিক্ষোভ প্রদর্শন করেন।
জানা গেছে, সম্প্রতি প্রধানমন্ত্রী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারি শিক্ষকদের ১৩ তম গ্রেডে উন্নীত করেন। ঘোষিত গ্রেড অনুযায়ী দেশের অন্যান্য উপজেলার প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষকরা উপজেলা হিসাবরক্ষণ কর্মকর্তার মাধ্যমে সফটওয়্যার আইবাস প্লাস ও পে ফিক্সিশনে তথ্য হাল নাগাদ করে বেতন উত্তোলন করে। তথ্য হালনাগাদ করতে পাটগ্রাম উপজেলার শিক্ষকরা উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তার মাধ্যমে প্রয়োজনীয় কাগজপত্র হিসাবরক্ষণ কর্মকর্তার নিকট জমা দেয়। শিক্ষকদের অভিযোগ হিসাবরক্ষণ কর্মকর্তা ও উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কার্যালয়ের অফিস সহকারির দাবিকৃত উৎকোচ না দেয়ায় দুই কার্যালয়ের মধ্যে ফাইল চালাচালি করে শিক্ষকদের হয়রানি করা হয়। তথ্য হালনাগাদ না হওয়ায় ঈদ সন্নিকট অবস্থায় শত শত শিক্ষকের বেতন, বোনাস উত্তোলণে অনিশ্চয়তা দেখা দেয়। এতে শিক্ষকরা ক্ষুব্ধ হয়ে হিসাবরক্ষণ কর্মকর্তাকে ঘন্টাব্যাপী অবরুদ্ধ করে রাখে। এরপর শিক্ষকরা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসারের কার্যালয় ঘেরাও করেও বিক্ষোভ প্রদর্শন করে এবং উপজেলা চেয়ারম্যানের কার্যালয়ে যায়।
উপজেলা চেয়ারম্যান রুহুল আমীন বাবুল হিসাবরক্ষণ কর্মকর্তা সিরাজুল ইসলাম ও প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা আবুল হোসেন এবং বিক্ষুব্ধ শিক্ষকদের নিয়ে প্রায় একঘন্টাব্যাপী যৌথ আলোচনাসভা করেন। সভা শেষে ঈদের আগেই শিক্ষকদের বেতন, বোনাস উত্তোলণে হিসাবরক্ষণ কর্মকর্তাকে কাজ করতে বলেন তিনি।
ছাট-পানবাড়ী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারি শিক্ষক আব্দুর রহিম প্রামানিক লিবন বলেন, হিসাবরক্ষণ কর্মকর্তা সিরাজুল ইসলাম শিক্ষকদের তথ্য হালনাগাদ না করে হয়রানি করে আসছেন। ক্ষুব্ধ শিক্ষকরা তাঁকে অবরুদ্ধ করে।
নামাজীটারী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারি শিক্ষক মফিদুল ইসলাম বলেন, হিসাবরক্ষণ কর্মকর্তার কার্যালয়ে টাকা ছাড়া কোনো কাজ হয়না। শিক্ষকরা শুধু না তাঁর অফিসে সাধারণ মানুষ কোনো মূল্যয়ন পায়না।
হিসাবরক্ষণ কর্মকর্তা সিরাজুল ইসলাম ঘুষ গ্রহণের অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, আমাদের এখানে কোনো টাকা পয়সা নেয়া হয় না। শিক্ষকদের এনআইডি দিয়ে টেস্ট করেছি। আইবাস ম্যানেজমেন্টের সমস্যা আছে। চেষ্টা করা হচ্ছে।

(আজিনুর রহমান আজিম)

Facebook Comments


এ জাতীয় আরো খবর
NayaTest.jpg