শিরোনাম
গোয়ালন্দ প্রবাসী ফোরামের উদ্যোগে অসচ্ছল মেধাবী শিক্ষার্থীদের মাঝে শিক্ষাবৃত্তি প্রদান রাজবাড়ীতে শেখ হাসিনার নির্দেশে মুক্তিযোদ্ধাদের মাঝে সম্মানি বিতরণ অবৈধ ড্রেজার ব্যবসায়ীকে জরিমানা, ৭টি ড্রেজার জব্দ গোয়ালন্দে অসহায় মানুষের মাঝে খাবার বিতরণ এমপি কন্যা চৈতীর উদ্যোগে জাঁকজমকপূর্ণ আয়োজনের মাধ্যমে শেষ হলো রাজবাড়ী সার্কেল আয়োজিত ইসলামিক কুইজ প্রতিযোগিতা ২০২১ করোনা ভাইরাস থেকে পরিত্রাণের জন্য রাজবাড়ী সার্কেলের বিশেষ দোয়া মাহফিল গোয়ালন্দে প্রধানমন্ত্রীর ঈদ উপহার নতুন পোশাক পেল সুবিধাবঞ্চিত শিশুরা দৌলতদিয়ায় হেরোইনসহ ৩ জন আটক রাজবাড়ী জেলা প্রশাসনের উদ্যোগে ভ্রাম্যমান আদালতে ব্যবসায়ীসহ ৫জনকে অর্থ জরিমানা পশ্চিম আকাশে চাঁদ দেখা গিয়াছে, আগামীকাল থেকে রোজা শুরু 

মোটরসাইকেল ও সড়ক দুর্ঘটনা

রনি মন্ডল | রাজবাড়ী টেলিগ্রাফ / ১৩৫ বার পড়া হয়েছে
সর্বশেষ আপডেট : সোমবার, ৩ মে, ২০২১

0Shares

প্রতিনিয়ত কোনো না কোনো কাজের জন্য বাড়ির বাইরে বের হয়। কারণ প্রত্যেক নাগরিককে তার ব্যক্তিগত এবং পেশাগত কাজের জন্য বাড়ির বাইরে বের হতে হয়, শুধু বাড়ি থেকে বের হওয়ার নয় নির্দিষ্ট গন্তব্য স্থানে পৌঁছানোর জন্য যানবাহন ব্যবহার করতে হয়। আর যানবাহন চলাচল করার জন্য রাস্তার প্রয়োজন পড়ে, আর এইসব রাস্তায় চলাচলের সময় অন্যমনষ্ক একটু অসচেতনতার কারণে দুর্ঘটনা সংঘটিত হয়। এইসব দুর্ঘটনায় প্রত্যেক বছর হাজার হাজার মানুষের জীবন বিপন্ন হয়। সড়ক দুর্ঘটনা যেসব কারণে ঘটে থাকে তার মধ্যে অন্যতম কারণ হলো বেপরোয়াভাবে গাড়ি চালানো। একজন চালক যিনি গাড়ি চালায় তার ওপর মানুষের বেঁচে থাকা নির্ভর করে। সে যদি একটু ভুল করে তার খেসারত যাত্রীদের জীবনের মাধ্যমে দিতে হয়। আমরা সাধারণত জানি যে শুধু বড় গাড়ির গুলোর মাধ্যমে সড়ক দুর্ঘটনা সংগঠিত হয়, কিন্তু আজকে আমি আলোচনা করতে চাই সড়ক দুর্ঘটনায় মোটরসাইকেল নামক দুই চাকা বাহন কতটুকু দায়ী? পাঠক আপনারা আপনাদের চারপাশের তাকালে দেখতে পাবেন কেমন দ্রুত মোটরসাইকেল এর পরিমাণ বৃদ্ধি পাচ্ছে। আসলে আপনারা যদি লক্ষ্য করেন তাহলে দেখতে পাবেন নতুন যারা মোটরসাইকেল ক্রয় করছে এবং চালাচ্ছে তাদের অধিকাংশেরই ড্রাইভিং লাইসেন্স নেই। তাদের মোটরসাইকেল লাইসেন্স বিহীন এসবের কারণে দেখা যায় অপ্রশিক্ষিত ব্যক্তি কতৃক দূর্ঘটনা সংঘটিত হচ্ছে। বাংলাদেশ যাত্রী কল্যাণ সমিতি মতে দেশে ৪৪ লাখ নিবন্ধনকৃত যানবাহনের মধ্য ৩১ লাখ মোটরসাইকেল। আর এসব এর ভেতর তিন থেকে চার লাখ অনিবন্ধনকৃত বাইক রাস্তায় চলাচল করছে। ১৮ লাখ বাইক চালক যাদের বৈধ ড্রাইভিং লাইসেন্স রয়েছে এবং বাকি চালকদের কোনরকম বৈধ লাইসেন্স নেই। লাইসেন্সবিহীন চালক কোনকিছুর পরোয়া না করে বাইক চালায় যার ফলে নিজেরাতো দুর্ঘটনায় পতিত হয় সাথে সাথে অন্যদেরকেও মৃত্যুর মুখে ঠেলে দেয়। সমিতির হিসাব মতে বিগত বছরে সড়ক দুর্ঘটনায় ২৪ দশমিক ৮ শতাংশ মোটরসাইকেল জড়িত, এবং ২০১৮ সালে নিরাপদ সড়ক চাই জরিপে মোটরসাইকেল উত্তরোত্তর বৃদ্ধি কে ক্রমবর্ধমান সড়ক দুর্ঘটনার প্রধান কারণ হিসেবে দেখানো হয়েছে। মোটরসাইকেল চালক যখন রাস্তায় চলাচল করে তখন একটা চিত্র প্রতিনিয়ত পাওয়া যায় আর তা হল বেপরোয়াভাবে মোটরসাইকেল চালানো। এছাড়াও একজন তরুণ যখন মোটরসাইকেল চালায় তখন তারা রাস্তার মাঝে এঁকেবেঁকে বাইক চালায়। এছাড়া অনেক সময় দেখা যায় রাস্তার মাঝে বড় গাড়িগুলোকে কোন রকম তোয়াক্কা না করে মোটরসাইকেলগুলো চলাচল করছে যার ফলে দুর্ঘটনা সংগঠিত হয়। তাই দেশের সচেতন নাগরিক হিসেবে আমাদের প্রত্যাশা লাইসেন্সবিহীন মোটরসাইকেল চলাচল করতে না পারে সেদিকে দৃষ্টি নিবন্ধন করা। চালকরা যদি ট্রাফিক রুলস না মানে সেক্ষেত্রে কঠিন শাস্তির বিধান করা

লেখক,
জাফরুল ইসলাম
শিক্ষার্থী রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়
০১৭৫৪৭৬৪০২৫

Facebook Comments


এ জাতীয় আরো খবর
NayaTest.jpg