শিরোনাম
শিবালয়ে নিষিদ্ধ সময়ে যমুনার চরে দিনব্যাপী ইলিশের হাট দৌলতদিয়ার যৌনপল্লিতে যৌনকর্মীর রক্তাক্ত লাশ উদ্ধার- গোয়ালন্দে কৃষকদের বাধা উপেক্ষা করে প্রভাবশালী মহল মরাপদ্মায় ড্রেজার দিয়ে অবাধে মাটি উত্তোলন করছে দৌলতদিয়া ইউনিয়ন যুবলীগ সাধারণ সম্পাদক বহিস্কার গোয়ালন্দে ছাত্রলীগ নেতাকে মারধরের অভিযোগে উপজেলা সেচ্ছাসেবক লীগ সভাপতি আটক- গোয়ালন্দে ৭০০ গ্রাম গাঁজাসহ দুই জন আটক গোয়ালন্দ প্রবাসী ফোরামের উদ্যোগে অসচ্ছল মেধাবী শিক্ষার্থীদের মাঝে শিক্ষাবৃত্তি প্রদান রাজবাড়ীতে শেখ হাসিনার নির্দেশে মুক্তিযোদ্ধাদের মাঝে সম্মানি বিতরণ অবৈধ ড্রেজার ব্যবসায়ীকে জরিমানা, ৭টি ড্রেজার জব্দ গোয়ালন্দে অসহায় মানুষের মাঝে খাবার বিতরণ এমপি কন্যা চৈতীর উদ্যোগে

৯০ উর্ধ্ব বৃদ্ধাকে উদ্ধার করে পরিবারের কাছে পৌঁছে দিল পুলিশ

রনি মন্ডল | রাজবাড়ী টেলিগ্রাফ / ১১১ বার পড়া হয়েছে
সর্বশেষ আপডেট : বৃহস্পতিবার, ২২ এপ্রিল, ২০২১

0Shares

গত ১৩ এপ্রিল রাত ১০টা ২১ মিনিটের দিকে একজন কলার ‘জাতীয় জরুরি সেবা-৯৯৯’ এ কল করে জানান যে নওগাঁ জেলার মহাদেবপুর থানার সুজাইলে রাস্তার পাশে এক অসুস্থ বৃদ্ধা অভুক্ত অবস্থায় পড়ে আছেন। তার বয়স অনুমান ৯৫ থেকে ১০০ বছর। ৯৯৯ অপারেটর সাথে সাথে বার্তাটি মহাদেবপুর থানাকে জানায় এবং দ্রুত প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে অনুরোধ জানায়। ৯৯৯ এর নির্দেশণা পাবার সাথে সাথেই মহাদেবপুর থানার একটি টিম ঐ বৃদ্ধাকে উদ্ধার করতে প্রদত্ত ঠিকানার উদ্দেশ্যে রওনা দেয়।

কিছুক্ষনের মধ্যে মহাদেবপুর থানার টিম সেখানে পৌঁছে বৃদ্ধাকে খুঁজে বের করে। তারা দেখতে পায় বৃদ্ধার অবস্থা অত্যন্ত জীর্ণশীর্ণ এবং তিনি ভালো করে কথাও বলতে পারছেন না। এমন অবস্থায় পুলিশ দ্রুত বৃদ্ধার জন্য পানীয় এবং কিছু খাবারের ব্যবস্থা করে। বৃদ্ধা এতো বেশি বয়স্ক ছিলেন আর শারীরিকভাবে এতোই দুর্বল ছিলেন যে, তিনি ঠিকমতো তার নাম-পরিচয় ও ঠিকানা বলতে পারছিলেন না।

পরিস্থিতি বিবেচনা করে পুলিশ তাকে দ্রুত মহাদেবপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গিয়ে প্রয়োজনীয় চিকিৎসার ব্যবস্থা করে। পাশাপাশি পুলিশ তাদের ফেসবুক পেইজে তার ছবি দিয়ে তার পরিচয় ও তার পরিবারের সন্ধান দিতে জনগণের নিকট অনুরোধ জানায়। অবশেষে ১৫ এপ্রিল জানা যায় যে বৃদ্ধার বাড়ি রাজশাহীর পবা থানার হাটপারিলা গ্রামে। পুলিশ সংশ্লিষ্ট থানার মাধ্যমে তার পরিবারের সাথে যোগাযোগ করে। পরবর্তিতে যথাযথ প্রক্রিয়া অনুসরণ করে ঐ রাতে আড়াইটার দিকে বৃদ্ধাকে তার বাড়িতে পৌঁছে দেয় পুলিশ।

বৃদ্ধার পরিবারের সদস্যরা জানান যে, মর্জিনা বেগমের তিন মেয়ে ও এক ছেলে। মর্জিনা বেগম তার ছেলে মজিবরের সঙ্গে বসবাস করতেন। প্রায় দুই বছর আগে তিনি নিখোঁজ হন। দুই বছর যাবত ছেলেমেয়েরা তাদের মাকে অনেক খোঁজাখুঁজি করেন। কিন্তু তারা তাকে কোথাও খুঁজে পাচ্ছিলেন না। একপর্যায়ে তারা তাকে খুঁজে পাবার আশা প্রায় ছেড়েই দিয়েছিলেন। এমন সময় পুলিশের সহায়তায় তারা তাদের মাকে ফিরে পেয়ে আবেগাপ্লুত হ‌য়ে প‌ড়েন।

Facebook Comments


এ জাতীয় আরো খবর
NayaTest.jpg