শিরোনাম
গোয়ালন্দে একদিনে নারীসহ ১৩ আসামি গ্রেপ্তার পাটুরিয়া ঘাটে গাড়িসহ ফেরি ডুবি- এক ঘণ্টার জন্য গোয়ালন্দ উপজেলার ইউএনও হলেন বাবলী- শিবালয়ে নিষিদ্ধ সময়ে যমুনার চরে দিনব্যাপী ইলিশের হাট দৌলতদিয়ার যৌনপল্লিতে যৌনকর্মীর রক্তাক্ত লাশ উদ্ধার- গোয়ালন্দে কৃষকদের বাধা উপেক্ষা করে প্রভাবশালী মহল মরাপদ্মায় ড্রেজার দিয়ে অবাধে মাটি উত্তোলন করছে দৌলতদিয়া ইউনিয়ন যুবলীগ সাধারণ সম্পাদক বহিস্কার গোয়ালন্দে ছাত্রলীগ নেতাকে মারধরের অভিযোগে উপজেলা সেচ্ছাসেবক লীগ সভাপতি আটক- গোয়ালন্দে ৭০০ গ্রাম গাঁজাসহ দুই জন আটক গোয়ালন্দ প্রবাসী ফোরামের উদ্যোগে অসচ্ছল মেধাবী শিক্ষার্থীদের মাঝে শিক্ষাবৃত্তি প্রদান

লাশবাহী গাড়িতে সাদা কাপড়ে পেঁচিয়ে ফেনসিডিল পাচার

রনি মন্ডল | রাজবাড়ী টেলিগ্রাফ / ২৩০ বার পড়া হয়েছে
সর্বশেষ আপডেট : মঙ্গলবার, ২০ এপ্রিল, ২০২১

0Shares

লাশবাহী ফ্রিজিং গাড়িতে কাফনের কাপড়ে ফেনসিডিল মোড়ানো। দেখতে অবিকল লাশ। অবাক করা হলেও সত্যি, লাশবাহী গাড়ি থেকে ২ হাজার বোতল ফেনসিডিলসহ ৪ জনকে গ্রেফতার করেছে ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি)। তারা হলেন- মাহাবুবুল হাসান, হাসানুর রহমান সবুজ, মো. সোহেল মিয়া ওরফে এমিলে ও রোমন। রবিবার বিকালে রাজধানীর শাহবাগের গণপূর্ত স্টাফ কোয়ার্টারের সামনে থেকে মাদকসহ তাদের গ্রেফতার করা হয়। মাদক ছাড়াও একটি লাশবাহী অ্যাম্বুলেন্স ও একটি মাইক্রোবাস জব্দ করা হয়েছে।

ডিবির গুলশান বিভাগের এসি মো. মাহবুবুল আলম জানান, গ্রেফতারকৃত মাদক ব্যবসায়ীরা লাশবাহী অ্যাম্বুলেন্সের ভিতরে সাদা কাপড়ে মোড়ানো তিনটি লাশের আদলে ফেনসিডিল বহন করছিলেন। তারা আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর চোখ ফাঁকি দিতে একটি কালো রংয়ের মাইক্রোবাসে যাত্রী সেজে লাশবাহী গাড়ির পেছনে পেছনে আসছিল। গোপন সংবাদের ভিত্তিতে লাশবাহী ফ্রিজিং অ্যাম্বুলেন্স জব্দ করা হয়। পরে তল্লাশি করে দেখা যায়, লাশবাহী ফ্রিজিং করা গাড়িতে লাশের মতো করে সাদা কাপড়ে মোড়ানো বস্তার ভিতরে তারা ফেনসিডিল নিয়ে আসছে। তারা পরস্পর যোগসাজশে অভিনব কায়দায় কুমিল্লার সীমান্তবর্তী এলাকা থেকে ফেনসিডিল সংগ্রহ করে। পরে ঢাকায় এনে বিভিন্ন এলাকায় পাইকারি ও খুচরা বিক্রি করে। এ ঘটনায় শাহবাগ থানায় মামলা করা হয়েছে।

ডিবি কর্মকর্তা মাহবুবুল আলম আরও জানান, রবিবার রাতে আরেকটি অভিযানে মোহাম্মদপুরের বেড়িবাঁধ এলাকা থেকে এক হাজার বোতল ফেনসিডিল ও একটি পিকআপসহ দুইজনকে গ্রেফতার করা হয়। তারা হলেন- মো. শামীম হোসেন ও আলামিন সরদার। তারা দীর্ঘদিন ধরে সীমান্তবর্তী জেলা চুয়াডাঙ্গা থেকে ফেনসিডিল এনে ঢাকা শহরের বিভিন্ন এলাকায় বিক্রি করে আসছে। এ ঘটনায় মোহাম্মদপুর থানায় মামলা করা হয়েছে।

সূত্র, বাংলাদেশ প্রতিদিন

Facebook Comments


এ জাতীয় আরো খবর
NayaTest.jpg