দৌলতদিয়ায় নদী পারের অপেক্ষায় আজও পাঁচশতাধিক পণ্যবাহি গাড়ি

জহুরুল ইসলাম হালিম | রাজবাড়ী টেলিগ্রাফ / ৬৪ বার পড়া হয়েছে
সর্বশেষ আপডেট : মঙ্গলবার, ১৩ এপ্রিল, ২০২১

0Shares

জহুরুল ইসলাম হালিমঃ

গোয়ালন্দের দৌলতদিয়ায়নদী পারের অপেক্ষায় রয়েছে পাঁচশতাধিক পণ্যবাহী গাড়ি। নদী পারের জন্য ঘণ্টার পর ঘণ্টা মহাসড়কে অবস্থান করতে হচ্ছে চালক ও সহকারীদের।

ফলে চরম ভোগান্তিতে পড়েছেন তারা। টয়লেট, পানি ও খাবারের কোনো ব্যবস্থা না থাকায় তাদের ভোগান্তি চরমে।

অন্যদিকে করোনারোধে সরকারের নির্দেশিত যে সকল নির্দেশনা দেয়া হয়েছিল তা মানা হচ্ছে না। কোন পণ্যবাহি চালকদের মধ্যেই নেই সচেতনতার বালাই। তাছাড়া লকডাউনের মধ্যে দূরপাল্লার পরিবহন বন্ধ থাকার পরেও দীর্ঘ সময় আটকে থাকায় ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন অনেক চালক। অনেক চালক অভিযোগ করেন ব্যক্তিগত গাড়ি পারাপারের জন্য এমন সমস্যা দেখা দিয়েছে।

মঙ্গলবার সকালে সরেজমিনে দেখা যায়, দৌলতদিয়া ঘাটের জিরো পয়েন্ট থেকে ২ কিলোমিটার ঢাকা-খুলনা মহাসড়কে প্রায় ২শতাধিক পণ্যবাহী গাড়ি নদী পারের অপেক্ষায় রয়েছে।

অপরদিকে দৌলতদিয়া ঘাটকে যানযট মুক্ত রাখতে দৌলতদিয়ার অদূরে গোয়ালন্দ মোড়ে দৌলতদিয়া-কুষ্টিয়া আঞ্চলিক মহাসড়কে রাজবাড়ীর দিকে প্রায় তিন কিলোমিটার পর্যন্ত ৩শতাধিক পণ্যবাহি গাড়ি আটকিয়ে রেখেছে ট্রাফিক পুলিশ।

যশোর থেকে ছেড়ে আসা এক পণ্যবাহি গাড়ির চালক বলেন, সোমবার রাতে এখানে এসেছি। আজ মঙ্গলবার দুপুর হলেও এখনো নদী পার হতে পারিনি। লকডাউনের মধ্যে দূরপাল্লার বাস বন্ধ থাকার পরেও কেন এত সময় আটকে থাকতে হচ্ছে তা বুঝতে পারছি না।

বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌ পরিবহন সংস্থা (বিআইডব্লিউটিসি) দৌলতদিয়া কার্যালয়ের সহকারী মহাব্যবস্থাপক ফিরোজ শেখ বলেন, গত রবিবার রাত থেকে ঘাট এলাকাতে পণ্যবাহি গাড়ির চাপ কিছুটা বেড়েছে। বর্তমান দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া নৌরুটে ১৭টি ফেরি চলাচল করছে। আশা করি খুব দ্রুতই নদী পার হতে পারবে এ সকল পণ্যবাহি গাড়ি।

Facebook Comments


এ জাতীয় আরো খবর
NayaTest.jpg