শিরোনাম
গোয়ালন্দে বিপুল পরিমাণ ফেন্সিডিল ও ইয়াবাসহ আটক ৫ আইনপ্রণেতা হয়ে নিজেই আইন লঙ্ঘন করলেন এমপি মমতাজ নানা অনিয়ম-দুর্নীতির অভিযোগ গোয়ালন্দ সরকারি হাসপাতালে মসজিদে জমি দান করায় বাবাকে হাতুড়িপেটা করে নির্মমভাবে হত্যা গোয়ালন্দে ফেন্সিডিলসহ দুই মাদক ব্যবসায়ী আটক ফেসবুকে স্ট্যাটাস দিয়ে রাজনীতিকে বিদায় জানালেন ছাত্রলীগ নেতা দুধ বিক্রি না করায় কৃষককে পেটালেন আ.লীগ নেতা ঢাকাসহ ১৩ জেলায় ৬০ কিমি বেগে ঝড়বৃষ্টির পূর্বাভাস বিদ্যালয়ের শ্রেণি কক্ষ ভাড়া নিয়ে চলছে ইউনিয়ন পরিষদের কার্যক্রম ! ব্যাহত হচ্ছে স্কুলের পাঠদান। মানিকগঞ্জে পাসপোর্ট করতে এসে দালালসহ রোহিঙ্গা নারী আটক

গোয়ালন্দে অবৈধ মাটি কাটা বন্ধ করায় সার্ভেয়ারকে মার-ধরের অভিযোগ

জহুরুল ইসলাম হালিম / ৩১২ বার পড়া হয়েছে
সর্বশেষ আপডেট : শুক্রবার, ১৯ ফেব্রুয়ারী, ২০২১

0Shares

জহুরুল ইসলাম হালিম :
গোয়ালন্দে সরকারি কাজে বাধা প্রদান, হুমকি, ভয়ভীতি ও শারীরিক লাঞ্চিত করার অভিযোগ করেছেন গোয়ালন্দ ভূমি অফিসের সার্ভেয়ার মাে. আশরাফুল হক। বৃহস্পতিবার দুপুরে ওই সার্ভেয়ারকে লাঞ্চিত করলে তিনি অভিযুক্ত মো. ওয়াসিম এর বিরুদ্ধে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কাছে লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন।

গোয়ালন্দ উপজেলা ভূমি কার্যালয়ের সার্ভেয়ার মো. আশরাফুল হক অভিযোগে বলেন, ভূমি খেকো মো. ওয়াসিম ইস্কেভেটর দিয়ে সরকারি জায়গার উপরে অবৈধভাবে কর্তৃপক্ষের বিনা অনুমতিতে দীর্ঘদিন মাটি কেটে ব্যবসা করে আসছে। সে বিষয়ে উপজেলা প্রশাসন হতে বারংবার নিষেধ করা সত্বেও উল্লেখিত ব্যক্তি অবৈধ মাটি ব্যবসা চালিয়ে আসছে যার ফলে এলাকার অনেক কৃষি ফসলী জমি নষ্ট হচ্ছে। এলাকার সাধারণ মানুষ একাধিক অভিযােগ করেছেন তাই আমি উপজেলা নির্বাহী আফিসারের মাৌখিক নির্দেশের প্রেক্ষিতে ইইএনও অফিসের নৈশ প্রহরী মাে. মিন্টু মন্ডল ও মাে. সাইফুল ইসলাম হৃদয়কে সঙ্গে নিয়ে মটরসাইকেল যােগে উপজেলার উত্তর দৌলতদিয়া মৌজায় সরকারি জমিতে গোয়ালন্দ পৌরসভা ১নং ওয়ার্ডের আব্দুল মজিদ মাস্টারের ছেলে মাে. ওয়াসিম (৪৫) অবৈধভাবে সরকারি নির্দেশ অমান্য করে সরকারি সম্পতিতে ইস্কেভেটর দ্বারা মাটি কেটে ব্যবসা করে আসছেন। আমি সরেজমিনে উপস্থিত হইয়ে উক্ত মাটি কাটা বন্ধ করে দিয়ে আসার সময় উল্লেখিত আমার সাথে থাকা ২জন ব্যক্তিকে মুঠোফোনে ওয়াসিম বিভিন্ন ভয়ভীতিসহ নানাধরনের হুমকি দেয়। পরবর্তীতে আমিসহ আরও ৪জন গোয়ালন্দ পৌর জামতলা বঙ্গবন্ধু স্মৃতি সংসদের অস্থায়ী কার্যলয়ে বসে আড্ডা দেওয়ার সময় হঠাৎ ওয়াসিম অফিসের মধ্যে ঢুকে আমাকে অতর্কিতভাবে আমার মুখে চড়-থাপ্পর মেরে দ্রুত পালিয়ে যায়। ওয়াসিম সেখান থেকে যেয়েই পারভেজ সেখ, মিটু মন্ডল ও সাইফুল ইসলাম হৃদয়কে মােবাইলে বিভিন্ন সময় হুমকি ধামকি দিতে থাকে।

অভিযোগ অস্বীকার করে মো. ওয়াসিম বলেন, এক-দুইদিন পর ভূমি অফিসের সার্ভেয়ার আশরাফুল স্পটে গিয়ে কাজ বন্ধ করতে নানা ধরনের বাহানা খুঁজে কিছু টাকা নিয়ে চলে আসে। গত বুধবার সে স্পট থেকে দুই হাজার টাকা নিয়েছে। পরদিন আবারও স্পটে যায় কাজ বন্ধ করতে। কাজ বন্ধ করার কারন কি জানতে জামতলা এলাকায় দেখা হলে উভয়ের মধ্যে বাকবিতন্ডা হয়। বরং সে আমার শার্টের কলার ধরলে স্থানীয়রা এসে ছাড়িয়ে দেয়। তাকে লাঞ্চিত করার অভিযোগ সম্পূর্ণ মিথ্যা ও বানোয়াট।

এ প্রসঙ্গে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) আমিনুল ইসলাম বলেন, সার্ভেয়ারকে লাাঞ্চিত করার অভিযোগ পেয়ে আগামী সোমবার উভয় পক্ষকে নিয়ে বসে কথা শুনতে ডেকেছি। দোষী যেই হোক তার বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

Facebook Comments


এ জাতীয় আরো খবর
NayaTest.jpg