শিরোনাম
রাজবাড়ীর নবনির্বাচিত মেয়রকে সংবর্ধনা জানালেন আর এস কে ইনস্টিটিউশন ১৯৯৮ এস.এস.সি ব্যাচ মিজানপুর চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী মোঃ টুকু মিজি’র নির্বাচনী মত বিনিময় সভা অনুষ্ঠিত পাংশায় তৃতীয় শ্রেণির ছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগে বৃদ্ধ গ্রেপ্তার রাজবাড়ী ডি‌বি পুলিশের অ‌ভিয‌ানে পে‌টের ম‌ধ্যে থেকে বিপুল পরিমাণ ইয়াবাসহ দুইজন গ্রেপ্তার রাজবাড়ী পৌরসভায় মেয়র নির্বাচিত হলেন আ.লীগ স্বতন্ত্র প্রার্থী আলমগীর শেখ তিতু গোয়ালন্দ পৌরসভায় প্রথম আ.লীগ সমর্থিত প্রার্থী নজরুল ইসলাম মন্ডলের জয় পদ্মায় কার্গোর সাথে যাত্রীবাহী লঞ্চের সংঘর্ষ, অল্পতে রক্ষা পেলেন দুই শতাধিক যাত্রী রাজবাড়ীতে কোভিড-১৯ টিকা সর্বপ্রথম নিলেন জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান গোয়ালন্দে চলন্ত ট্রেনের নিচে ঝাঁপ দিয়ে আনিছের আত্মহত্যা

দৌলতদিয়া ইউনিয়ন ৩নং ওয়ার্ডে ব্রীজ আছে রাস্তা নাই

জহুরুল ইসলাম হালিম | রাজবাড়ী টেলিগ্রাফ / ১৭৬ বার পড়া হয়েছে
সর্বশেষ আপডেট : বুধবার, ৩ ফেব্রুয়ারী, ২০২১

সংবাদটি শেয়ার করুন

জহুরুল ইসলাম হালিম:
রাজবাড়ীর গোয়ালন্দ উপজেলা দৌলতদিয়া ইউনিয়ন পরিষদ ৩নং ওয়ার্ড বেপারী পাড়া হইতে ইদ্রিস মিয়ার পাড়া অভিমুখে রাস্তায় ৩৩’ফুট দৈর্ঘ্যের ২০১৫-২০১৬ অর্থবছরে ত্রাণ ও দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা অধিদফতরের অর্থায়নে এবং উপজেলা ত্রাণ শাখার বাস্তবায়নে একটি আরসিসি সেতু ২২লাখ ৯৯ হাজার ৫শত ৫ টাকা ব্যয়ে নির্মাণ করা হয়।

এলাকাবাসীর অভিযোগ সেতু নির্মিত হলেও সড়ক নির্মিত হয় ঢিলেঢালা ভাবে। ইউনিয়নের বেপারী পাড়া ও ইদ্রিস মিয়ার পাড়া গ্রামের পাশ দিয়ে বয়ে গেছে পদ্মা নদীর শাখা। এই পদ্মা নদী শাখার খাল পারাপারের জন্য স্থানীয় বাসিন্দাদের সুবিধার্থে সেতু নির্মাণ করা হয়। কিন্তু দীর্ঘ দিন সংযোগ সড়ক না থাকায় ও সংযোগ সড়কের অভাবে দুই গ্রামের বাসিন্দা, স্কুল-কলেজ ও মাদরাসার শিক্ষার্থীরা কষ্টে দিন কাটাচ্ছেন।

সেতুটি নির্মাণের খবরে খুশি হয়েছিলেন গ্রামবাসী। তারা ভেবেছিলেন সেতু হয়েছে গ্রামবাসীর কষ্টের দিনও শেষ হয়ছে। কিন্তু সড়ক না থাকায় তাদের কষ্ট আরও বেরেছে।

ফলে সড়ক না থাকায় চলাচল করতে অসুবিধা হওয়ায় সেতুটি তাদের কপালে দুর্ভোগের কারণ হয়ে দাঁড়ায়। জনস্বার্থে সেতুর দুই পাশে সংযোগ সড়কের মাটির কাজ জরুরি ভিত্তিতে ভরাটের দাবি জানান গ্রামবাসী।

বেপারী পাড়া গ্রামের বাসিন্দা ছামাদ বেপারি, আলম, রফিকুল, রানাসহ বেশ কয়েকজন জানান, সেতু রয়েছে কিন্তু সেতু পার হওয়ার কোনো রাস্তা নেই। কবে মাটি ফেলে রাস্তা করবে কে জানে। রাস্তা না হলে এই সেতু গ্রামের মানুষের কোনো উপকারে আসবে না।

উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা আবু সাঈদ মন্ডল বলেন, বিষয়টি আমার জানা আছে। সেতুর সংযোগ সড়কের কাজ প্রতি বছরই করা হয় কিন্তু পদ্মার স্রোতে আবার তা প্রতি বছরই বিলীন হয়ে যায়। অচিরেরই আবার সংযোগ সড়ক নির্মাণের কাজ করা হবে।

Facebook Comments


এ জাতীয় আরো খবর
NayaTest.jpg