শিরোনাম
দৌলতদিয়া যৌনপল্লী থেকে দৌড়ে পালালেন এসআই উপজেলা ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক কে হত্যাচেষ্টায় গুরুতর আহত নির্বাচিত চেয়ারম্যানকে দুধ দিয়ে গোসল করালেন এলাকাবাসী  রাজবাড়ীতে মাদক মামলায় দুই মাদক ব্যবসায়ীর যাবজ্জীবন কারাদণ্ড বালিয়াকান্দিতে প্রতিপক্ষের হামলায় আনারস প্রতীকের কর্মী আহত  চালককে হত্যা করে মোটরসাইকেল ছিনতাই : চারজনের যাবজ্জীবন খাবারের মেয়াদ নিয়ে বনফুলের এ কেমন প্রতারণা! বালিয়াকান্দিতে দুই চেয়ারম্যান প্রার্থীর সমর্থকদের সংঘর্ষের ঘটনায় পাল্টাপাল্টি অভিযোগ  চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে জেলেদের ভিজিএফের চাল আত্মসাতের অভিযোগ ফরিদপুরের তিনটি উপজেলায় চেয়ারম্যান হলেন যারা

ইউপি সদস্যের বিরুদ্ধে নারীকে মারধরের অভিযোগ

জহুরুল ইসলাম হালিম / ৩৫২ বার পড়া হয়েছে
সর্বশেষ আপডেট : বুধবার, ৩ ফেব্রুয়ারী, ২০২১

0Shares

মানিকগঞ্জ প্রতিনিধি/
মানিকগঞ্জের সিংগাইরে জমি সংক্রান্ত বিরোধের জেরে ইউপি সদস্যের নেতৃত্বে প্রতিপক্ষের উপর হামলার অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় ভুক্তভোগী শামসুন্নাহার বাদী হয়ে সিংগাইর থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেছেন।
জানা গেছে, শামসুন্নাহারের স্বামী আতোয়ার রহমান শামসুন্নাহারের শ^শুর মো: ওসমান গণীর নিকট হতে ৬০ শতাংশ জমি ক্রয় করেন তার। গত ২৮ জানুয়ারি রোজ বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে ৮ টার দিকে ওই জমিতে চাষকৃত খেসারি কলাই তুলতে গেলে প্রতিপক্ষ রমজান আলী, স্থানীয় ইউপি সদস্য আ: মালেক, স্থানীয় সাংবাদিক মিজানুর রহমান বাদল ও মোয়াজ্জেমসহ অজ্ঞাত আরো বেশ কয়েকজন সন্ত্রাসীবাহিনী দেশীয় অস্ত্রসস্ত্র নিয়ে শামসুন্নাহার, শামসুন্নাহারের ভাই আরশেদ আলী ও তার স্ত্রী ছালিমা আক্তারের উপর অতর্কিত হামলা চালায়। এতে গুরুত্বর আহত হয়ে তারা সিংগাইর উপজেলা হাসপাতালে ভর্তি হয়।
শামসুন্নাহার জানান, সিংগাইর উপজেলার চারিগ্রাম ইউনিয়নের বড় চারিগ্রাম মৌজার আরএস ১০১১ নং খতিয়ানে আরএস ৩৩৫৩ দাগে ১ আনায় ৮৪ শতাংস জমি থেকে আমার শ^শুর ওসমান গণীর নিকট হতে ৬০ শতাংস জমি ক্রয় করেন আমার স্বামী আতোয়ার রহমান। এরপর হতে উক্ত জমিতে আমরা ভোগ দখল হিসেবে চাষাবাদ করছি। এমতাবস্থায় ঘটনার দিন পূর্ব পরিকল্পিতভাবে রমজান আলী, স্থানীয় মেম্বার মালেক ও সাংবাদিক মিজানুর রহমান বাদল ও তার ভাগ্নে মোয়াজ্জেমের নেতৃত্বে একদল সন্ত্রাসী আমাদের উপর হামলা চালায়। এখন আমি ও আমার পরিবারের সকলে চরম নিরাপত্তাহীনতায় রয়েছি।
এ বিষয়ে অভিযুক্ত রমজান আলী বলেন, আমি ওই জমির ৭৮ শতাংশ সাফ কবলা দলিল মূলে ক্রয় করেছি। ১৫/১৬ বছর যাবৎ ভোগ দখলে আছি। ওই জমির খেসারি কলাই আমি চাষ করেছি। তারা আমার জমি থেকে অন্যায়ভাবে খেসারি কলাই নিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করলে আমি স্থানীয় মেম্বার আ: মালেক, সাংবাদিক মিজানসহ এলাকার মুরুব্বিদের নিয়ে তাদের নিষেধ করলে তারা উল্টো আমাদের মারধর করে। আমরা তাদের কোন রকম মারধর করি নাই।
চারিগ্রাম ইউনিয়ন পরিষদের সদস্য আ: মালেক বলেন, আমি শামসুন্নাহার বা তার পরিবারের কাউকে মারধর করিনি। বরং তারাই আমাদের মারপিট করে।
অভিযোগের বিষয়ে সিংগাইর থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) মনোহর বলেন, জমি সংক্রান্ত বিরোধের জেরে আরশেদ আলী মারধরের শিকার হয়েছেন। উভয় পক্ষের দলিলাদি নিয়ে বসার কথা চলছে। মীমাংসা না হলে তদন্ত সাপেক্ষে সংশ্লিষ্ট ধারায় অভিযুক্ত করে প্রতিপক্ষের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

Facebook Comments


এ জাতীয় আরো খবর
NayaTest.jpg