শিরোনাম
এক ঘণ্টার জন্য গোয়ালন্দ উপজেলার ইউএনও হলেন বাবলী- শিবালয়ে নিষিদ্ধ সময়ে যমুনার চরে দিনব্যাপী ইলিশের হাট দৌলতদিয়ার যৌনপল্লিতে যৌনকর্মীর রক্তাক্ত লাশ উদ্ধার- গোয়ালন্দে কৃষকদের বাধা উপেক্ষা করে প্রভাবশালী মহল মরাপদ্মায় ড্রেজার দিয়ে অবাধে মাটি উত্তোলন করছে দৌলতদিয়া ইউনিয়ন যুবলীগ সাধারণ সম্পাদক বহিস্কার গোয়ালন্দে ছাত্রলীগ নেতাকে মারধরের অভিযোগে উপজেলা সেচ্ছাসেবক লীগ সভাপতি আটক- গোয়ালন্দে ৭০০ গ্রাম গাঁজাসহ দুই জন আটক গোয়ালন্দ প্রবাসী ফোরামের উদ্যোগে অসচ্ছল মেধাবী শিক্ষার্থীদের মাঝে শিক্ষাবৃত্তি প্রদান রাজবাড়ীতে শেখ হাসিনার নির্দেশে মুক্তিযোদ্ধাদের মাঝে সম্মানি বিতরণ অবৈধ ড্রেজার ব্যবসায়ীকে জরিমানা, ৭টি ড্রেজার জব্দ

গোয়ালন্দ উপজেলার বিএনপির আহবায়ক কমিটির সভাপতি সুলতান নুর মুন্নু সদস্য সচিব তিতাস

জহুরুল ইসলাম হালিম | রাজবাড়ী টেলিগ্রাফ / ২১৪ বার পড়া হয়েছে
সর্বশেষ আপডেট : শনিবার, ২ জানুয়ারী, ২০২১

0Shares

জহুরুল ইসলাম হালিম //

আজ ২ জানুয়ারি (শনিবার) গোয়ালন্দ উপজেলা বিএনপির সাবেক সভাপতি মো. সুলতান নুর ইসলাম মুন্নুকে আহবায়ক ও সাবেক রাজবাড়ী জেলা কমিটির উপদেষ্টা মো. নাজিরুল ইসলাম তিতাসকে সদস্য সচিব করে ৭১ সদস্য বিশিষ্ট আহ্বায়ক কমিটি ঘোষণা করেছে রাজবাড়ী জেলা বিএনপি।

বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল বিএনপির সদ্য ঘোষিত গোয়ালন্দ উপজেলা কমিটি নিয়ে গোয়ালন্দ বিএনপির নেতাকর্মীদের মাঝে মতভেদ রয়েছে।

দলের বিভিন্ন পর্যায়ের নেতাকর্মীরা বলেছেন, কমিটিতে অনেক ত্যাগী নেতাকর্মীর নাম নেই। অনেকে আবার বলেছেন এই কমিটির বিষয়ে তাদের সঙ্গে আলোচনা করা হয়নি। তবে অনেকেই আবার এ কমিটিকে সাধুবাদ জানিয়েছেন। তারা বলেছেন ত্যাগী ও দলের জন্য নিবেদিত লোকজন নিয়েই কমিটি গঠন করেছেন।

জেলা বিএনপির সদস্য সচিব মনজুরুল আলম দুলাল স্বাক্ষরিত কমিটিকে জেলা কমিটির আহবায়ক এ্যাড. লিয়াকত আলীর স্বাক্ষর না থাকায় কমিটির বৈধতা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন অনেক নেতাকর্মীরা।


তবে ১ জানুয়ারি কমিটির তালিকা প্রকাশ করা হয়। জেলা বিএনপি’র সদস্য সচিব মনজুরুল আলম দুলাল স্বাক্ষরিত ওই আহবায়ক কমিটির অনুমোদন দেয়া হয়।

সদ্য ঘোষিত কমিটির বিষয়ে জেলা আহবায়ক কমিটির আহবায়ক এ্যাড. লিয়াকত আলীর নিকট জানতে চাইলে তিনি “রাজবাড়ী টেলিগ্রাফকে” বলেন গত ২৪/১২/২০২০ কেন্দ্রীয় কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক ফরিদ পুর বিভাগের দায়িত্বপ্রাপ্ত সামা ওবায়েদ ও সহ সাংগঠনিক সম্পাদক সেলিমুজ্জান সেলিম স্বাক্ষরিত নির্দেশনায় আমি ও ১নং যুগ্ন আহবায়ক এ্যাড. কামরুল আলমের স্বাক্ষর ব্যতিত কমিটির বৈধতা থাকার কথা নয়, আমার বুঝে আসেনা কি করে তাহারা কমিটি দেন।

এ বিষয়ে জেলা বিএনপির সদস্য সচিব অধ্যক্ষ মন্জুরুল আলম দুলাল বলেন, দলের এই ক্লান্ত লগ্নে অসাধু ব্যক্তিরা কমিটি বাণিজ্য করছে বলে সত্যতা পাওয়া গেছে। এর হাত হতে দলকে রক্ষা করার জন্য তৃনমূল ও পরীক্ষিত নেতাকর্মীদের নিয়ে কমিটি গঠন করেছি।
এখানে আমার ব্যক্তিগত কোন লোক নেই, কমিটিতে বিএনপির নিবেদিত ব্যক্তিরাই আছেন। যারা মামলা, হয়রানির শিকার হয়েছেন তারাই আছেন কমিটিতে।

Facebook Comments


এ জাতীয় আরো খবর
NayaTest.jpg