চলে গেলেন সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়

নিউজ ডেস্ক | রাজবাড়ী টেলিগ্রাফ / ৩৯ বার পড়া হয়েছে
সর্বশেষ আপডেট : রবিবার, ১৫ নভেম্বর, ২০২০

সংবাদটি শেয়ার করুন
  • 35
    Shares

হাসপাতালে দীর্ঘ লড়াইয়ের পর চলে গেলেন বাংলা ছবির মহাতারকা, অভিনেতা-নাট্যকার-বাচিকশিল্পী-কবি-চিত্রকর সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়।

রবিবার (১৫ নভেম্বর) পৃথিবীর মায়া কাটিয়ে ৪১ দিনের যুদ্ধ শেষে না ফেরার দেশে চলে যান তিনি।

কলকাতার বেসরকারি নার্সিংহোম বেলভিউতে ৪০ দিন চিকিৎসাধীন থাকার পর স্থানীয় সময় রোববার দুপুরে তিনি মারা যান। তার বয়স হয়েছিল ৮৫ বছর।

সৌমিত্রের করোনার নমুনা পরীক্ষার রিপোর্ট পজিটিভ আসার পর গত ৬ অক্টোবর তাকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

একদিন অন্তর একদিন তার কিডনির ডায়ালাইসিস করা হচ্ছিল। ২৪ অক্টোবর থেকে তার শারীরিক অবস্থার মূলত অবনতি হতে থাকে। তার পর ধীরে ধীরে তিনি চেতনাহীন হয়ে পড়েন।

গত বুধবার জনপ্রিয় এ অভিনেতার শ্বাসনালিতে অস্ত্রোপচার হয়। এর পর গত শুক্রবার থেকে সৌমিত্রের শারীরিক অবস্থার আরও অবনতি হতে থাকে। তাকে পুরোপুরি লাইফ সাপোর্টে রাখা হয়। কিন্তু তাতেও তিনি সাড়া দিচ্ছিলেন না।

এর পরই আজ তার মৃত্যুর সংবাদ দিল বেলভিউ হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ।

১৯৩৫ সালের ১৯ জানুয়ারি পশ্চিমবঙ্গের নদীয়া জেলার কৃষ্ণনগরে জন্মগ্রহণ করেন সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়। উচ্চশিক্ষা গ্রহণ কলকাতায়।

বাংলা চলচ্চিত্রের এই দিকপাল পেয়েছেন ভারতের চলচ্চিত্র অঙ্গনের সর্বোচ্চ রাষ্ট্রীয় সম্মান দাদা সাহেব ফালকে পুরস্কার। এ ছাড়া আরও দেশ-বিদেশের বহু পুরস্কার পেয়েছেন তিনি।

এছাড়া পরিণীতা, সাত পাকে বাঁধা, অভিযানের মতো কালজয়ী চলচ্চিত্রগুলোতে অভিনয় করেন তিনি। সাম্প্রতিক সময়ে পারমিতার একদিন, বেলাশেষের মতো চলচ্চিত্রগুলোতেও অনবদ্য অভিনয় দিয়ে কাঁপিয়েছেন হাজারও গুণমুদ্ধ দর্শকের মন।

প্রখ্যাত চলচ্চিত্র পরিচালক সত্যজিৎ রায়ের ঐতিহাসিক অমর সৃষ্টি ‘অপুর সংসার’ চলচ্চিত্রে অভিনয় করেন সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়। পরে তিনি মৃণাল সেন, তপন সিংহ, অজয় করের মতো পরিচালকদের সঙ্গেও কাজ করেছেন।

Facebook Comments


এ জাতীয় আরো খবর