দৌলতদিয়া যৌনপল্লীতে চাঁদাবাজীর অভিযোগে গ্রেফতার-২

নিউজ ডেস্ক | রাজবাড়ী টেলিগ্রাফ / ৯৫ বার পড়া হয়েছে
সর্বশেষ আপডেট : বুধবার, ২৮ অক্টোবর, ২০২০

সংবাদটি শেয়ার করুন
  • 71
    Shares

জহুরুল ইসলাম হালিম // দেশের সর্ববৃহৎ দৌলতদিয়া যৌনপল্লীতে চাঁদাবাজির মামলায় রাসেল রাফি (২৫) ও রবিন (২৮) নামের দুইজনকে গ্রেফতার করেছে গোয়ালন্দ ঘাট থানা পুলিশ। বুধবার সকালে যৌনপল্লীর সামনে দৌলতদিয়া রেল স্টেশন এলাকা থেকে তাদেরকে গ্রেফতার করা হয়।

গ্রেপ্তারকৃতরা হলো-দৌলতদিয়া রেলস্টেশন এলাকার নারানের ছেলে রাসেল রাফি এবং দৌলতদিয়া বাজার এলাকার নুর আলমের ছেলে রবিন। রাসেল রাফি একটি অনলাইন পোর্টালের স্টাফ রিপোর্টার এবং রবিন ভিডিও এডিটর বলে নিজেদের দাবী করেন।

তাদের বিরুদ্ধে যৌনপল্লীর বাড়ীওয়ালী পুষ্প রাণী বাদী হয়ে ২৭ অক্টোবর মঙ্গলবার রাজবাড়ীর ৩নং আমলী আদালতে চাঁদাবাজি ও মারপিটের অভিযোগ এনে একটি মামলা দায়ের করেন। আদালত মামলাটি আমলে নিয়ে ওই দিনই গোয়ালন্দ ঘাট থানায় এজাহারভুক্ত করার আদেশ দেন। পুলিশ এর আলোকে বুধবার সকালে অভিযান চালিয়ে রাসেল রাফি ও রবিনকে আটক করে।

মামলার এজাহার সূত্রে জানা গেছে, আটক দুই আসামীসহ অজ্ঞাতনামা ৫/৭ জন গত ২০ অক্টোবর রাত ১০টার দিকে যৌনপল্লীর বাড়ীওয়ালী পুষ্প রাণীর বাড়ীতে গিয়ে হামলা করে। তারা বাড়ীওয়ালীর নিকট ইতিপূর্বে দাবীকৃত চাঁদার ২ লক্ষ টাকার জন্য অস্ত্রের মূখে প্রাণনাশের হুমকি দেয় এবং এলোপাথারী মারপিট করে ও খুনের হুমকি দেয়, এক পর্যায়ে পুষ্প রাণী তার ঘরে থাকা নগদ ৫০ হাজার টাকা তাদের হাতে তুলে দেয়। এরপর তারা আরও দেড় লক্ষ টাকার জন্য উত্তেজিত হলে পুষ্প রাণী আত্নচিৎকার করলে আশে পাশের লোকজন এগিয়ে আসলে আসামীরা আগামী ৭ দিনের মধ্যে বাকী দেড় লক্ষ টাকা পরিশোধের হুমকি দিয়ে চলে যায়।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে গোয়লন্দ ঘাট থানার পরিদর্শক (তদন্ত) ও ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আব্দুল্লাহ আল তায়াবীর জানান, আদালতের নির্দেশে ঘটনার তদন্তে সত্যতা পাওয়ায় আসামীদেরকে গ্রেপ্তার করি ও বাকী আসামীদেরও দ্রুত গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।

Facebook Comments


এ জাতীয় আরো খবর