গোয়ালন্দ পৌরসভা ‘কামান’ আছে ‘গোলা’ নেই

নিউজ ডেস্ক | রাজবাড়ী টেলিগ্রাফ / ৪২৬ বার পড়া হয়েছে
সর্বশেষ আপডেট : রবিবার, ১১ অক্টোবর, ২০২০

0Shares

জহুরুল ইসলাম হালিম // রাজবাড়ীর প্রথম শ্রেণির গোয়ালন্দ পৌর শহরের বিভিন্ন স্থানে ময়লা-আবর্জনার অসংখ্য স্তুপ সৃষ্টি হয়ে আছে। পঁচাগলা ময়লা-আবর্জনা জমে অকার্যকর হয়ে পড়ে থাকা গুরুত্বপূর্ণ ড্রেনগুলো এখন মশা উৎপাদনের খামারে পরিনত হয়েছে। দিন-রাত সার্বক্ষণিক সেখান থেকে পঁচা দুর্গন্ধ ছড়িয়ে এলাকার পরিবেশ দূষিত হচ্ছে। পাশাপাশি উপদ্রব ভয়ানক হারে বেড়ে যাওয়ায় মশার কাঁমড়ে রাতে ঘুমাতে পারছেন না এলাকার সাধারণ মানুষ। এতে জনদূর্ভোগ সৃষ্টি হলেও বিষয়টি সংশ্লিষ্ট পৌর কৃতপক্ষের নজরে আসছে না।


এদিকে গোয়ালন্দ উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পারিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. আসিফ মাহমুদ জানিয়েছেন, মশার কামড়ে মানুষের মাঝে নানা রোগ ছড়ায়। তাই এলাকায় নিয়মিত মশকনিধন কার্যক্রম চালানোর পাশাপাশি মশার প্রজননস্থল ধ্বংস করা খুব জরুরী।

গোয়ালন্দ পৌরসভার সচিব মো. রুহুল আমীন সত্যতা স্বীকার করে বলেন, গোয়ালন্দ পৌর শহরের ড্রেনসহ বিভিন্ন স্থানে জমে থাকা ময়লা-আবর্জনার স্তুপ দ্রুত অপসারণ করা হবে। মশানিধন ও প্রজনন ধ্বংসে পৌরসভায় উন্নত মানের একটি ফগার মেশিন থাকলেও প্রয়োজনীয় ওষুধ নেই। মশা মারার ওই ওষুধের দাম অনেক। বাইরে থেকে তা কিনে আনতে হয়। কিন্তু বর্তমান ওই ওষুধ কেনার টাকা বরাদ্দ নেই।’ টাকা বরাদ্দ পেলে গোয়ালন্দ পৌর এলাকায় মশানিধন কার্যক্রম চালানো হবে বলে তিনি জানান।

Facebook Comments


এ জাতীয় আরো খবর
NayaTest.jpg