রাজবাড়ীতেও বেড়েছে পেঁয়াজের দাম, মূল্য স্থিতিশীল রাখতে সরকারের নানা উদ্যোগ

নিউজ ডেস্ক | রাজবাড়ী টেলিগ্রাফ / ৩০৪ বার পড়া হয়েছে
সর্বশেষ আপডেট : বুধবার, ১৬ সেপ্টেম্বর, ২০২০

0Shares

ভারতীয় পেঁয়াজ বন্ধের সংবাদ ছড়িয়ে পড়ার সাথে সাথে রাজবাড়ী বাজারেও বেড়েছে পেঁয়াজের দাম। রাজবাড়ী বাজারে প্রতি কেজি পেঁয়াজ বিক্রি হচ্ছে ৮০ থেকে ১০০ টাকা দরে । পেঁয়াজের দাম বৃদ্ধি হওয়ায় কৃষকের মুখে হাসি ফুটেছে,তবে এখন আর কৃষকের সংগ্রহে বেশি পেঁয়াজ নেই বলে জানান অনেকেই । কৃষকের মুখে হাসি ফুটলেও সাধারণ ক্রেতারা পড়েছে বিপাকে। রাজবাড়ী বাজারের একাধীক ব্যবসায়ীর সাথে কথা হলে তারা বলেন ২দিন আগেও পেঁয়াজের মন ছিল ২ হাজার থেকে ২২ শত টাকা। এখন কিনতে হচ্ছে বেশি দামে।

সরকার পেঁয়াজের মূল্যবৃদ্ধি ঠেকাতে নয়টি উদ্যোগ গ্রহণ করেছে। ইতোমধ্যে এসব উদ্যোগ বাস্তবায়ন কার্যক্রম শুরু করেছে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়।

মঙ্গলবার (১৫ সেপ্টেম্বর) বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের জনসংযোগ দফতর থেকে পেঁয়াজের মূল্যবৃদ্ধি ঠেকাতে যেসব উদ্যোগ নিয়েছে সেগুলো হচ্ছে:

১.মন্ত্রিপরিষদ সচিব, দেশের আট বিভাগীয় কমিশনার, দেশের ৬৪ জেলা প্রশাসকের নিকট বাজার মনিটরিং জোরদারকরণের জন্য চিঠি পাঠানো হয়েছে।

২.রাজবাড়ী,ফরিদপুর, পাবনা ও নাটোর—এই তিন জেলার জেলা প্রশাসকদের পেঁয়াজের উৎপাদন, মজুত, সরবরাহ এবং মূল্য পরিস্থিতি স্থিতিশীল রাখার ক্ষেত্রে সক্রিয় ভূমিকা পালনের জন্য বাণিজ্য সচিব ডিও লেটার দিয়েছেন।

৩. পেঁয়াজের বিষয়ে দ্রুত সংগনিরোধ সনদ ইস্যু করার জন্য কষি মন্ত্রণালয়ে চিঠি দেওয়া হয়েছে।

৪. পেঁয়াজের সরবরাহ স্বাভাবিক রাখতে আমদানিকারকদের এলসি খোলাসহ সার্বিক সহযোগিতার জন্য বাংলাদেশ ব্যাংকের গভর্নর বরাবর চিঠি পাঠানো হয়েছে।

৫. পেঁয়াজের সরবরাহ স্বাভাবিক রাখতে আমদানি করা পেঁয়াজ স্থলবন্দর থেকে দ্রুততম সময়ের মধ্যে ছাড় করতে এবং আমদানিকারকদের সহযোগিতা করার জন্য জাতীয় রাজস্ব বোর্ড (এনবিআর) চেয়ারম্যানের কাছে চিঠি পাঠানো হয়েছে।

৬. পেঁয়াজের ওপর ৫ শতাংশ আমদানি শুল্ক আপাতত প্রত্যাহারের জন্য এনবিআর চেয়ারম্যানেরে কাছে চিঠি পাঠানো হয়েছে।

৭. পেঁয়াজের বাজার সরবরাহ স্বাভাবিক ও মূল্য স্থিতিশীল রাখতে আমদানি করা পেঁয়াজ বেনাপোল, ভোমরা, সোনা মসজিদ ও হিলি স্থলবন্দর থেকে দ্রুততম সময়ে ছাড় করতে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য স্থলবন্দর চেয়ারম্যানের কাছে চিঠি পাঠানো হয়েছে।

৮. পেঁয়াজের উৎপাদন, মজুত ও মূল্য পরিস্থিতি সংক্রান্ত তথ্য জোগাড় করতে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের তিন জন যুগ্ম-সচিবকে পাবনা, নাটোর, রাজবাড়ী ও ফরিদপুরে পাঠানো হয়েছে।

৯. স্থল ও নদীবন্দরে পেঁয়াজের আমদানি পরিস্থিতি, কন্টেইনার জট ও কৃত্রিম সংকট আছে কিনা তা দেখে রিপোর্ট দেওয়ার জন্য স্ব-স্ব কর্তৃপক্ষের কাছে চিঠি দেওয়া হয়েছে।

Facebook Comments


এ জাতীয় আরো খবর
NayaTest.jpg