শিরোনাম
এক ঘণ্টার জন্য গোয়ালন্দ উপজেলার ইউএনও হলেন বাবলী- শিবালয়ে নিষিদ্ধ সময়ে যমুনার চরে দিনব্যাপী ইলিশের হাট দৌলতদিয়ার যৌনপল্লিতে যৌনকর্মীর রক্তাক্ত লাশ উদ্ধার- গোয়ালন্দে কৃষকদের বাধা উপেক্ষা করে প্রভাবশালী মহল মরাপদ্মায় ড্রেজার দিয়ে অবাধে মাটি উত্তোলন করছে দৌলতদিয়া ইউনিয়ন যুবলীগ সাধারণ সম্পাদক বহিস্কার গোয়ালন্দে ছাত্রলীগ নেতাকে মারধরের অভিযোগে উপজেলা সেচ্ছাসেবক লীগ সভাপতি আটক- গোয়ালন্দে ৭০০ গ্রাম গাঁজাসহ দুই জন আটক গোয়ালন্দ প্রবাসী ফোরামের উদ্যোগে অসচ্ছল মেধাবী শিক্ষার্থীদের মাঝে শিক্ষাবৃত্তি প্রদান রাজবাড়ীতে শেখ হাসিনার নির্দেশে মুক্তিযোদ্ধাদের মাঝে সম্মানি বিতরণ অবৈধ ড্রেজার ব্যবসায়ীকে জরিমানা, ৭টি ড্রেজার জব্দ

বাংলাদেশের যে গ্রামের নাম ‘ইউটিউব’

সম্পাদকীয় | রাজবাড়ী টেলিগ্রাফ / ২৩৪ বার পড়া হয়েছে
সর্বশেষ আপডেট : মঙ্গলবার, ২৫ আগস্ট, ২০২০

0Shares

গ্রামের নাম ইউটিউব। তা’ও আবার কুষ্টিয়া জেলায়। গ্রামবাসীর বিচিত্র কাজ ইউটিউবে বিশ্বের কাছে তুলে ধরায় অনানুষ্ঠানিক এই নামে পরিচিতি পাচ্ছে গ্রামটি, যার আসল নাম শিমুলিয়া। কী করে ইউটিউব পাল্টে দিচ্ছে এই গ্রামকে?

শিমুলিয়া গ্রামের একদিনের রান্নার দৃশ্য। সোনালী মুরগীর ঝাল রোস্ট আর ডিম-পোলাও। সপ্তাহে দু-তিন দিন এমন রান্না হয়। রেসিপি নিয়ে গ্রামবাসীর কাছে আসে কুষ্টিয়ার খোকসা উপজেলার এই গ্রামের স্কুল শিক্ষক দেলোয়ার হোসেনের দল। দলে আছে গ্রামের ১৬ জন গৃহিনী, দুজন ক্যামেরাম্যানসহ ৩০ জন।

শান্ত নিবীড় এই গ্রাম বেলা বাড়ার সাথে সাথে কর্মময় হয়ে ওঠে। তবে এই কর্মময়তার রয়েছে ভিন্ন স্বাদ, নিজেদের দৈনন্দিন ঘরকন্যার কাজকেই সম্পূর্ণ নিজেদের আঙ্গিকে বিশ্ববাসীর কাছে তুলে ধরছে এই গ্রামের একদল নারী পুরুষ। নিজেদের পরিচিত করেছে একমাত্র ইউটিউব ভিলেজের প্রতিনিধি হিসেবে।

উৎসবের আমেজে সকাল থেকে রান্না হয়। রাধুঁনীদের সবার পোশাকে একই রঙের ছটা। দলবেঁধে কেউ মুরগী পেয়াঁজ, রসুন, মরিচ কাটে। এক দল মসলা পিষার শব্দ তুলে।

সপ্তাহে দুই-তিন দিন বিনামূল্যে গ্রামের পাঁচশ থেকে হাজার মানুষ খায়। পুরো আয়োজন ইউটিউবে দেখতে পারে বিশ্ববাসী।

অ্যারাউন্ড মি বিডি নামে ইউটিউব চ্যানেলটি গ্রামের লিটন আলী খান শখের বসে খোলেন ২০১৭ সালে। প্রথম বিভিন্ন মাছ বাজার ঘুরে ব্যক্তিগত মোবাইলে ছবি তুলে ইউটিউবে আপলোড শুরু করেন। দেশী-বিদেশী বহু দর্শক জুটে, শুরু হয় আর্থিক মুনাফা। কাজের আগ্রহ বাড়ে। লিটন তার মামা দেলোয়ারকে নিয়ে শিমুলিয়া গ্রামের মানুষদের একত্রিত করে। গ্রামের রান্না আপলোড শুরু করে ইউটিউব চ্যানেলটিতে। যার বর্তমান সাবস্ক্রাইবার দেশি-বিদেশী প্রায় ২৪ লাখ মানুষ।

তবে দল বেধে নিজেদের অর্থে গ্রামের মানুষের জন্য রান্নার আয়োজন শুরু ২০১৮ সালে। প্রথম অল্প করে হতো। চ্যানেলটির আয় বাড়ায় রান্নার আয়োজন বড় হয়। নিয়মিত সাধারণ খাবারের পাশাপাশি পোলাও, বিরিয়ানির মতো অভিজাত খাবার হয় এখন। গ্রামের হাজার লোকও খায়।

বিশ্বখ্যাত ফুড রিভিউয়ার সানি সাইট খোঁজ পেয়ে গত অক্টোবর ঘুরে গেছেন শিমুলিয়া গ্রামে। ইউটিউব কেন্দ্রিক এই কাজ শিমুলিয়াকে বিদেশিদের কাছে পরিচিত করছে ‘ইউটিউব ভিলেজ’ নামে।

Facebook Comments


এ জাতীয় আরো খবর
NayaTest.jpg