শিরোনাম
মানিকগঞ্জ জেলা প্রেসক্লাবের দ্বি-বার্ষিক নির্বাচন: সভাপতি আমিনুল, সম্পাদক নুরুজ্জামান গোয়ালন্দে ৪ কেজি গাঁজাসহ মাদক ব্যবসায়ী আটক কাজী ছালামের বিরুদ্ধে বাল্যবিয়ে পড়ানোসহ নানা অভিযোগ গোয়ালন্দে পানিতে ডুবে নির্মাণ শ্রমিকের মৃত্যু গোয়ালন্দে বিদেশে পাঠানোর প্রলোভনে বাগানে নিয়ে এক নারীকে গণধর্ষনের অভিযোগ কৃষকের বাড়ি নির্মাণে আ.লীগ নেতার চাঁদা দাবি, থানায় অভিযোগ ছাত্রীদের উত্ত্যক্তের প্রতিবাদ করায় শিক্ষককে পেটালো সাবেক ২ ছাত্র গোয়ালন্দে জমিজমা সংক্রান্ত বিরোধের জেরে যুবককে কোদাল দিয়ে কুপিয়ে হত্যা বাড়ছে ভাসমান ভিক্ষুকের সংখ্যা এক ঘন্টার প্রতীকী ইউএনও হলেন ফারজানা আক্তার

কৃষকের বাড়ি নির্মাণে আ.লীগ নেতার চাঁদা দাবি, থানায় অভিযোগ

নিউজ ডেস্ক | রাজবাড়ী টেলিগ্রাফ / ৩৫ বার পড়া হয়েছে
সর্বশেষ আপডেট : মঙ্গলবার, ১৫ নভেম্বর, ২০২২

0Shares

সাইফুল ইসলাম, মানিকগঞ্জ প্রতিনিধি,

মানিকগঞ্জের সিংগাইর উপজেলার জামশা ইউনিয়নের বালুরচর গ্রামে এক কৃষকের বসতবাড়ি নির্মাণের সময় চাঁদা দাবির অভিযোগ উঠেছে এক আওয়ামী লীগ নেতার বিরুদ্ধে।

এ ঘটনায় মঙ্গলবার (১৫ নভেম্বর) ভূক্তভোগী কৃষক লাল মিয়া (৬০) বাদি হয়ে সিংগাইর থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন।

অভিযুক্ত আওয়ামী লীগ নেতা মহিদুর রহমান (৩৫) উপজেলার জামশা ইউনিয়নের ২নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি । তিনি উপজেলার জামশা ইউনিয়নের বালুরচর গ্রামের শরৎ আলীর ছেলে।

অভিযোগসূত্রে জানা গেছে, ভূক্তভোগী কৃষক লাল মিয়া বসত বাড়ি নির্মাণের উদ্দেশ্যে বালি ক্রয় করে কালীগঙ্গা নদীপথে ট্রলারে করে বালি এনে পাইপের মাধ্যমে জমি ভরাটের কাজ করছিলেন। তখন স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতা মহিদুর রহমান ক্ষমতার দাপটে লাল মিয়ার নিকট ৫ লাখ টাকা চাঁদা দাবি করে। লাল মিয়া চাঁদা দিতে অপারগতা প্রকাশ করলে মঙ্গলবার সকাল আটটার দিকে অভিযুক্ত মহিদুর রহমান বালি ফেলার পাইপ ভাংচুর করে। এরপর কৃষক লাল মিয়া অভিযুক্ত মহিদুর রহমানকে জিজ্ঞাসা করলে মহিদুর বালি ফেলতে দিবে না বলে জানায় এবং লাল মিয়াকে বিভিন্ন রকমের হুমকি প্রদান করে।

কৃষক লাল মিয়া বলেন, আমি বাড়ি করার জন্য পাইপ দিয়ে ট্র্রলার থেকে বালি এনে জমিতে ফেলার সময় অনিচ্ছাকৃতভাবে তাদের জমিতে সামন্য বালি গিয়েছিল। আমি নিজে তার জমি থেকে বালি সড়িয়ে দিতে চেয়েছিলাম এবং তার ফসলের যে ক্ষতি হয়েছে সেজন্য ক্ষতিপূরণও দিতে চেয়েছিলাম। কিন্ত সে তা না মেনে পাইপ ভাংচুর করেছে এবং ৫ লাখ টাকা দাবি করেছে।

এ বিষয়ে মহিদুর রহমান বলেন, লাল মিয়া আমার ধান ক্ষেত নষ্ট করে বালি ফেলেছে। আমার জমিতে বালি ফেলতে নিষেধ করায় তারা আমার নামে মিথ্যা অভিযোগ করেছে। আমি কোন চাঁদা দাবি করিনি।আমার জমি ও ফসল নষ্ট করায় আমিও তার বিরুদ্ধে থানায় অভিযোগ করেছি।

এ প্রসঙ্গে সিংগাইর থানার উপ-পরিদর্শক মো: তারেক বলেন, অভিযোগ পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়েছিলাম। ধান ক্ষেতে বালি যাওয়া নিয়ে তাদের মধ্যে সামান্য বিরোধ হয়েছে।

Facebook Comments


এ জাতীয় আরো খবর
NayaTest.jpg