শিরোনাম
ফরিদপুরে হাসপাতালে জন্ম নেয়া কন্যা সন্তানকে স্বর্ণের কানের দুল উপহার  গোয়ালন্দে ১০ গ্রাম হেরোইনসহ এক যুবক গ্রেপ্তার গোয়ালন্দে দুই কেজি গাঁজাসহ মাদক কারবারি আটক। রাজবাড়ীর গোয়ালন্দ পৌরসভার ৫৫ কোটি টাকার বাজেট ঘোষণা রাজবাড়ীর বালিয়াকান্দি উপজেলায় প্রতি পিস লেবু ২০-৩০ পয়সা,হতাশ চাষীরা। গোয়ালন্দে অজ্ঞান পার্টি চক্রের পাঁচ সদস্য আটক দৌলতদিয়ায় যানবাহনের অপেক্ষায় ফেরি বাদল হত্যাকান্ডে জড়িতদের শাস্তির দাবীতে বিক্ষোভ মিছিল ও মানববন্ধন রাজবাড়ীর পাংশায় গ্যাস সিলিন্ডার থেকে আগুন, শিশুসহ চারজন অগ্নিদগ্ধ কুষ্টিয়ায় মাদকদ্রব্য অপব্যবহার ও পাচারবিরোধী আন্ত: দিবস পালিত।

শ্রমিক লীগ-যুবলীগ নেতার অবৈধ ড্রেজার বাণিজ্য

নিউজ ডেস্ক | রাজবাড়ী টেলিগ্রাফ / ২৯ বার পড়া হয়েছে
সর্বশেষ আপডেট : বৃহস্পতিবার, ২৮ এপ্রিল, ২০২২

0Shares

শ্রমিক লীগ-যুবলীগ নেতার অবৈধ ড্রেজার বাণিজ্য

সাইফুল ইসলাম, মানিকগঞ্জ প্রতিনিধি, ২৮ এপ্রিল
স্থানীয় প্রশাসনকে ম্যানেজ করে মানিকগঞ্জের ঘিওরে দীর্ঘদিন ধরে প্রশাসনের নাকের ডগায় অবৈধভাবে ড্রেজার বাণিজ্য করছে উপজেলা শ্রমিক লীগের সভাপতি মোঃ ছানোয়ার হোসেন ও উপজেলা যুবলীগ নেতা আমিনুর ইসলাম। এতে হুমকির মুখে পড়েছে উপজেলার কালীগঙ্গা নদীর তীরবর্তী গ্রামগুলো।
রাজিৈতক পরিচয়ে স্থানীয় প্রভাবশালীরা অবৈধভাবে এমন রমরমা বালুর ব্যবসা চালালেও এ ব্যাপারে প্রশাসন কার্যকর কোন ভূমিকাই পালন করছেন না বলে এলাকাবাসীর অভিযোগ।
স্থানীয়রা জানান, দীর্ঘদিন ধরে চলমান এসব অবৈধ ড্রেজারের কারণে ফসলি জমি, বসতবাড়ি, দোকানপাট, বাজার, রাস্তাঘাট ও বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান হুমকির মুখে রয়েছে। সাধারণ মানুষের কথা চিন্তা করে এসব অবৈধ ড্রেজার ব্যবসা বন্ধে দ্রুত প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করেন তারা।
খোঁজ নিয়ে জানা যায়, পয়লা ইউনিয়নের শ্রীধরনগর এলাকায় কালীগঙ্গা নদীতে দীর্ঘদিন ধরে নিষিদ্ধ ড্রেজার মেশিন বসিয়ে শ্রীধরনগর, বেগুননারচী, বাসুদেববাড়ী, বরুরিয়া এলাকায় বালু ব্যবসা করছে উপজেলা শ্রমিক লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মোঃ ছানোয়ার হোসেন। এছাড়া ঘিওর সরকারি কলেজ ও ঘিওর ব্রীজের (পুরাতন) ১৫০ গজ দূরে অবৈধ ড্রেজার মেশিন বসিয়েছে যুবলীগ নেতা আমিনুর ইসলাম। ভূূমিহীনদের জন্য নির্মিত আশ্রয়ণ প্রকল্পের মাটি ভরাটের নাম করে এসব ড্রেজার ব্যবসা চালানোর মৌখিক অনুমোদন দেয় স্থানীয় প্রশাসন। তবে আশ্রয়ণ প্রকল্পের মাটি ভরাটের কাজ শেষ হয়ে গেলেও বন্ধ হয়নি বালুখেকোদের রমরমা বাণিজ্য।
আশ্রয়ণ প্রকল্পের মাটি ভরাটের কাজ শেষ হওয়ার পরেও অবৈধ ড্রেজার ব্যবসা কিভাবে করছেন জানতে চাইলে ঘিওর উপজেলা যুবলীগের উপ-প্রচার সম্পাদক আমিনুর ইসলাম বলেন, নদীর বাক রাস্তার ও বাড়িঘরের দিকে যাচ্ছে। মানবিক কারণে এখান থেকে বালি উত্তোলন করছি। এখান থেকে না কাটলে রাস্তা ও ব্রিজ ভেঙ্গে যাবে। আশ্রয়ন প্রকল্পের মাটি ভরাটের কাজ এখনো শেষ হয়নি। আশ্রয়ণ প্রকল্পের মাটি ভরাটের পাশাপাশি বাইরে কিছু জায়গায় ভরাট করি। বাইরে দুয়েক জায়গায় মাটি বিক্রি না করলে আমাদের খরচ উঠবে কিভাবে? আমরা প্রশাসনের সাথে কথা বলেই এগুলো করছি।
অপরদিকে, ঘিওর উপজেলা শ্রমিক লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মোঃ ছানোয়ার হোসেন বলেন, এমপি মহোদয় রাস্তার দুইটা রাস্তার প্রকল্প দিয়েছে সেটা কাজ করেছি। সাথে প্রধানমন্ত্রীর আশ্রয়ণ প্রকল্পের কাজ করেছি, এখান থেকে শুধু তেল খরচ দিয়েছে। পাশাপাশি দুয়েক জায়গায় ভরাট করা হয়েছে। বাইরে বালি বিক্রির বিষয়ে প্রশাসনের কোন কর্মকর্তা জানেন কি’না জানতে চাইলে তিনি বলেন, আমাকে তো অন্য কোন লাইন দেয়নি, আমাকে বলেছে- এটা করে দিলে শুধু তেল খরচ দিবে। পাশাপাশি দুয়েক জায়গায় চালানোর অনুমতি দিবে।
এ বিষয়ে ঘিওর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) হামিদুর রহমান বলেন, আজ সকালে অভিযান চালিয়ে তাদের ড্রেজার মেশিন ভেঙ্গে গুড়িয়ে দিয়েছি। আশ্রয়ণ প্রকল্পের বিষয়টা আমাদের মাথায় আছে, তবে আশ্রয়ণ প্রকল্পের নামে কেউ অবৈধ ড্রেজার ব্যবসা চালালে কাউকে ছাড় দেয়া হবেনা।

Facebook Comments


এ জাতীয় আরো খবর
NayaTest.jpg