শিরোনাম
ফরিদপুরে হাসপাতালে জন্ম নেয়া কন্যা সন্তানকে স্বর্ণের কানের দুল উপহার  গোয়ালন্দে ১০ গ্রাম হেরোইনসহ এক যুবক গ্রেপ্তার গোয়ালন্দে দুই কেজি গাঁজাসহ মাদক কারবারি আটক। রাজবাড়ীর গোয়ালন্দ পৌরসভার ৫৫ কোটি টাকার বাজেট ঘোষণা রাজবাড়ীর বালিয়াকান্দি উপজেলায় প্রতি পিস লেবু ২০-৩০ পয়সা,হতাশ চাষীরা। গোয়ালন্দে অজ্ঞান পার্টি চক্রের পাঁচ সদস্য আটক দৌলতদিয়ায় যানবাহনের অপেক্ষায় ফেরি বাদল হত্যাকান্ডে জড়িতদের শাস্তির দাবীতে বিক্ষোভ মিছিল ও মানববন্ধন রাজবাড়ীর পাংশায় গ্যাস সিলিন্ডার থেকে আগুন, শিশুসহ চারজন অগ্নিদগ্ধ কুষ্টিয়ায় মাদকদ্রব্য অপব্যবহার ও পাচারবিরোধী আন্ত: দিবস পালিত।

পদ্মা নদীর পাড়ে অবৈধ বালু উত্তোলন: ভাঙন ঝুঁকিতে নদী পাড়ের মানুষ

ষ্টাফ রিপোর্টার | রাজবাড়ী টেলিগ্রাফ / ৭৯ বার পড়া হয়েছে
সর্বশেষ আপডেট : শুক্রবার, ৪ মার্চ, ২০২২

0Shares

স্টাফ রিপোর্টারঃ

রাজবাড়ীর গোয়ালন্দ উপজেলায় একাধিক জায়গায় ফসলি জমি ও নদীর পারে চলছে মাটি ও বালি বিক্রির উৎসব। প্রশাসনের সামনে দিয়েই চলছে মাটি ও বালির রমরমা ব্যবসা, দেখার কেউ নেই বলছেন নদী পারের সাধারণ মানুষ।

বুধবার (২ মার্চ) দুপুরে সরেজমিন ঘুরে দেখা যায়, দৌলতদিয়া ৭নং ফেরি ঘাটের পাশে প্রভাবশালী একটি মহল ভেকু দিয়ে অবাধে প্রতিনিয়ত খনন করে বালি বিক্রি করে যাচ্ছে। প্রতিদিন ড্রাম ট্রাক দিয়ে ৫০০ গাড়ি বালি বিক্রি করছে। তার দাম অনুমান ৬ থেকে ৭ লক্ষ টাকা। হুমকির মুখে রয়েছেন ৭নং ফেরি ঘাট।

আর ভাঙন আতংকে রয়েছেন নদী পারের সাধারণ মানুষ। এদিকে দৌলতদিয়া ক্যানাল ঘাট এলাকায় নদীর পাড়ে চলছে মাটি কাটার উৎসব। প্রতিবছর বর্ষা মৌসুমে পদ্মা নদীর ভাঙন শুকনো মৌসুমে বেকু দিয়ে মাটি খনন করার উৎসব। খনন কৃত মাটি যাচ্ছে বিভিন্ন ইট ভাটায়, বালু যাচ্ছে ভরাট কাজে।

প্রতিদিন শতশত ট্রাক বালু ও মাটি খনন করে বিক্রি করছে প্রভাবশালী একটি মহল। নদী পাড়ের মানুষের একাধিক ব্যক্তির অভিযোগ, মাঝে মধ্যে অভিযান পরিচালিত হয় কিছু দিনের জন্য বন্ধ থাকে, কিছুদিন যেতে না যেতেই চালু হয়ে যায় মাটি ও বালির ব্যবসা। মাটি কাটার সাথে জড়িতরা প্রভাবশালী হওয়ায় বিভিন্ন মহল নিয়ন্ত্রণ করে বিক্রি করছেন মাটি ও বালি। তাদের কিছু বলতে গেলেও নানা সমস্যার মুখোমুখি হতে হয়, প্রভাবশালীদের ভয়ে প্রশাসনের কাছে অভিযোগ পর্যন্ত দিতে ভয় পায় ভুক্তভোগীদের পরিবাররা।

আবার এদিকে গোয়ালন্দে কয়েকটি স্থানে বেকু দিয়ে ব্যক্তি মালিকানাধীন ফসলি জমি মাটি খনন করে মাটি বিক্রি করছে। এতে অনেকের পাশের ফসলি জমি ভেঙ্গে যাচ্ছে, করতে হচ্ছে মারামারি বাধ্য হচ্ছে প্রভাবশালীদের নিকট অল্প মূল্যে বিক্রি করতে। এতে প্রতিকার চায় ভুক্তভোগীরা।

এ বিষয়ে গোয়ালন্দ উপজেলা নিবার্হী ম্যাজিস্ট্রেট ভূমি মো.রফিকুল ইসলাম মুঠোফোনে জানান তদন্তপূর্বক ব্যবস্থা গ্রহণ করব।

Facebook Comments


এ জাতীয় আরো খবর
NayaTest.jpg