বাবা স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী ছেলেকে যু্বলীগ থেকে অব্যাহতি

রনি মন্ডল | রাজবাড়ী টেলিগ্রাফ / ১০০ বার পড়া হয়েছে
সর্বশেষ আপডেট : রবিবার, ১২ ডিসেম্বর, ২০২১

0Shares

স্টাফ রিপোর্টারঃ

কুষ্টিয়ার কুমারখালীতে দলীয় সিদ্ধান্তের বাইরে গিয়ে স্বতন্ত্র প্রার্থীর খোলামেলা প্রচার – প্রচারণা করার অভিযোগে এক যুবলীগ নেতাকে সাময়িক অব্যাহতি দেওয়া হয়েছে। ওই যুবলীগ নেতার নাম মেহেদী হাসান। তিনি উপজেলার জগন্নাথপুর ইউনিয়ন যু্বলীগের আহবায়ক।

রোববার দুপুরে উপজেলা যু্বলীগের সভাপতি হারুন অর রশিদ ও সাধারণ সম্পাদক মনির হাসান রিন্টুর স্বাক্ষরিত এক বিজ্ঞপ্তি এতথ্য জানানো হয়। এনিয়ে উপজেলায় এপর্যন্ত চার যু্বলীগ নেতাকে অব্যাহতি দেওয়া হল।

তবে অব্যাহতি প্রাপ্ত যু্বলীগ নেতা সাংবাদিকদের কাছে অভিযোগ করে বলেন, ‘ কেন্দ্রীয় নির্দেশনা অনুসারে দলের বাইরে নির্বাচন করা যাবেনা। একথা সঠিক। কিন্তু বিশেষ ক্ষেত্রে তা পর্যালোচনা করা যেতে পারে। তাছাড়াও বিনা নোটিশে জেলা বা উপজেলা কমিটি কাউকে সরাসরি অব্যাহতি দিতে পারেনা। ‘

দলীয় সুত্রে জানা গেছে, আগামী ২৬ শে ডিসেম্বর চতুর্থধাপে অনুষ্ঠিত হবে এউপজেলার ১১ টি ইউনিয়নে ইউপি নির্বাচন। সেই নির্বাচনে জগন্নাথপুর ইউনিয়ন থেকে স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে নির্বাচন করছেন যু্বলীগ নেতা মেহেদী হাসানের বাবা আব্দুল্লাহ আল বাকী বাদশা। বাবাকে সাথে নিয়ে খোলামেলা ভোটের প্রচার প্রচারণা করছেন মেহেদী হাসান। যা দলের শৃঙ্খলা ভঙ্গ করে। তাই তাঁকে শঙ্খলা ভঙ্গের দায়ে যুবলীগগ থেকে সাময়িক অব্যাহতি দেওয়া হয়েছে। পরিবর্তে স্থায়ী অব্যাহতি দেওয়া হতে পারে।

এরআগে গত শুক্রবারে শৃঙ্খলা ভঙ্গের দায়ে উপজেলা যুবলীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি ও সদকী ইউনিয়নের স্বতন্ত্র প্রার্থী আব্দুল মজিদের ভাই রবিউল আউয়াল, সদকী ইউনিয়ন যুবলীগের সভাপতি কিরণ হোসেন ও সাধারণ সম্পাদক হিরণ হোসেন।

এবিষয়ে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একাধিক আওয়ামী লীগ ও অঙ্গ সংগঠনের নেতাকর্মীরা সাংবাদিকের জানায়, ‘ শুধু যু্বলীগ নয়, ১১ টি ইউনিয়নেই আওয়ামী লীগ ও অঙ্গ সংগঠনের নেতাকর্মীরা দলের সিদ্ধান্তের বাইরের প্রার্থীর প্রচার প্রচারণা করছে। তাঁদের বিরুদ্ধেও কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া দরকার। না হলে এই উপজেলাও নৌকার ভরাডুবি হবে।’

অব্যাহতি প্রাপ্ত যু্বলীগ নেতা মেহেদী হাসান মুঠোফোনে বলেন, ‘ বাবা স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী। এলাকায় বাবার বেশ সাড়া। তাই বাবার ভোট করছি। তবে অব্যাহতির বিষয় জানিনা। ‘ তিনি আরো বলেন, ‘ জেলা বা উপজেলা কমিটি কাউকে অব্যাহতি দিতে পারেনা। যা করার কেন্দ্রীয় কমিটি করবে। ‘

উপজেলা যুবলীগের সভাপতি হারুন-অর-রশীদ হারুন বলেন, ‘মাননীয় প্রধানমন্ত্রী নির্বাচনে দলীয় নৌকা প্রতীক দিয়েছেন, তাই নৌকার বিপক্ষে যারা যাবে তাদের বিরুদ্ধেই দলীয় হাই-কমান্ডের নির্দেশে কঠোর ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে। তাই দলের বিরুদ্ধে গিয়ে স্বতন্ত্র প্রার্থীর পক্ষে নির্বাচনী প্রচার প্রচারণা করায় জগন্নাথপুর ইউনিয়ন যু্বলীগের আহবায়ক মেহেদী হাসানকে সাময়িক অব্যাহতি দেওয়া হয়েছে। পরবর্তীতে স্থায়ী অব্যাহতি দেওয়া হতে পারে। তিনি আরো বলেন, ‘ উপজেলা কমিটি যদি অনুমোদন দিতে পারে। তাহলে অবশ্যয় কাউকে সাময়িক অব্যাহতি দিয়ে কেন্দ্রীয় কমিটির কাছে স্থায়ী অব্যাহতির সুপারিশ করতে পারে। ‘

Facebook Comments


এ জাতীয় আরো খবর
NayaTest.jpg