শিরোনাম
মানিকগঞ্জ জেলা প্রেসক্লাবের দ্বি-বার্ষিক নির্বাচন: সভাপতি আমিনুল, সম্পাদক নুরুজ্জামান গোয়ালন্দে ৪ কেজি গাঁজাসহ মাদক ব্যবসায়ী আটক কাজী ছালামের বিরুদ্ধে বাল্যবিয়ে পড়ানোসহ নানা অভিযোগ গোয়ালন্দে পানিতে ডুবে নির্মাণ শ্রমিকের মৃত্যু গোয়ালন্দে বিদেশে পাঠানোর প্রলোভনে বাগানে নিয়ে এক নারীকে গণধর্ষনের অভিযোগ কৃষকের বাড়ি নির্মাণে আ.লীগ নেতার চাঁদা দাবি, থানায় অভিযোগ ছাত্রীদের উত্ত্যক্তের প্রতিবাদ করায় শিক্ষককে পেটালো সাবেক ২ ছাত্র গোয়ালন্দে জমিজমা সংক্রান্ত বিরোধের জেরে যুবককে কোদাল দিয়ে কুপিয়ে হত্যা বাড়ছে ভাসমান ভিক্ষুকের সংখ্যা এক ঘন্টার প্রতীকী ইউএনও হলেন ফারজানা আক্তার

কালুখালীতে পরকীয়া করতে গিয়ে ধরা খেয়ে মোটরসাইকেল ফেলে পালালেন ইউপি সদস্য

ষ্টাফ রিপোর্টার | রাজবাড়ী টেলিগ্রাফ / ১৪৯ বার পড়া হয়েছে
সর্বশেষ আপডেট : মঙ্গলবার, ২ নভেম্বর, ২০২১

0Shares

স্টাফ রিপোর্টারঃ

রাজবাড়ীর কালুখালীতে পরকীয়া করতে গিয়ে এলাকাবাসীর ধাওয়া খেয়ে মোটরসাইকেল ফেলে রেখে পালালেন সাবেক ইউপি সদস্য নজরুল ইসলাম(৫০)।

নজরুল ইসলাম কালুখালী উপজেলার সাওরাইল ইউনিয়নের ৭নং ওয়ার্ডের সাবেক ইউপি সদস্য।
মঙ্গলবার ভোররাতে ইউনিয়নের 3 নং ওয়ার্ডের মুরিঘাটা গ্রামে ঘটনাটি ঘটেছে। নজরুল ইসলাম লাড়ীবাড়ী গ্রামের মৃত মজিবর মাস্টার।

সরেজমিনে গিয়ে জানা যায়, মুরিঘাটা গ্রামের মৃত তায়জেল মিয়ার মেয়ে ফরিদা খাতুনের সাথে প্রায় ৫ বছরের সম্পর্ক নজরুল ইসলামের। রাতের আধাঁরে প্রায় প্রায়ই নিতে আসতো ফরিদা খাতুনকে। মঙ্গলবার ভোররাতেও নিতে আসেন তাকে। এ সময় স্থানীয় লোকজন টের পেয়ে ধরতে গেলে মোটরসাইকেল ফেলে রেখে দুইজনই দৌরে পালান।

ফরিদা খানুনের ভাবি ফাতেমা বেগম বলেন, ইতিপূর্বে আমার (ননদী) ফরিদা খাতুনের দুই বার বিবাহ্ দেয়া হয়েছে। প্রথম স্বামী মারা যায় পরবর্তীতে আবারো বিবাহ দেওয়া হয়। ফরিদার এরুপ আচরণের কারনে ফরিদাকে ছেড়ে চলে যায়। প্রায় ৫ বছর ধরে নজরুল ইসলামের সাথে সম্পর্কে কথা আমরা জানি। তবে এ পর্যন্ত হাতে নাতে ধরতে পরিনি৷ গত রাতে আমরা হাতে নাতে ধরার চেষ্টা করলে নজরুল ইসলাম ও আমার ননদীনি মোটরসাইকেল ফেলে পালিয়ে যায়। এ সময় আমরা দুই বোতল যৌন উত্তেজক সিরাপ ও এক জোড়া সেন্ডেল পাই। মোটরসাইকেল কেউ যেন ভাঙচুর না করে এজন্য আমরা ঘরের মধ্যে তালা দিয়ে রেখেছি।

এ ঘটনায় সাবেক ইউপি সদস্য নজরুল ইসলামের কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, ঘটনাটি ঘটেছে আমি ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান মোঃ শহিদুল ইসলাম আলীকে পাঠিয়েছি। তিনি আসবে তারপরে আপনাদের সাথে কথা বলবো।

সাওরাইল ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান মোঃ শহিদুল ইসলাম আলী বলেন, বিষয়টি শোনার পর আমি ঘটনাস্থলে গিয়ে ছিলাম। মেয়ের পরিবারের লোকজন কাউকে ধরতে পরেনি। তবে মোটরসাইকেলটি ওই বাড়িতে আছে।

কালুখালী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. নাজমুল হাসান বলেন, বিষয়টি সম্পর্কে কোনো অভিযোগ পাইনি। অভিযোগ পেলে তদন্ত সাপেক্ষে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

Facebook Comments


এ জাতীয় আরো খবর
NayaTest.jpg