গোয়ালন্দ উপজেলা বি.এন.পির আহবায়ক কমিটি প্রত্যাখ্যান করে সংবাদ সম্মেলন –

রনি মন্ডল | রাজবাড়ী টেলিগ্রাফ / ৮৩ বার পড়া হয়েছে
সর্বশেষ আপডেট : মঙ্গলবার, ২৬ অক্টোবর, ২০২১

0Shares

স্টাফ রিপোর্টারঃ

রাজবাড়ীর গোয়ালন্দ উপজেলা বিএনপির সদ্য ঘোষিত আহবায়ক কমিটিকে প্রত্যাখ্যান করে তা বাতিলের দাবিতে সংবাদ সম্মেলন করেছেন উপজেলা বি.এন.পির একাংশের নেতাকর্মীরা।

মঙ্গলবার (২৬ অক্টোবর) বেলা ১১টায় গোয়ালন্দ প্রেসক্লাবের অস্থায়ী কার্যালয়ে এ সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়।

এ সময় সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন উপজেলা বি.এন.পি নেতা সুলতান নুর ইসলাম মুন্নু। লিখিত বক্তব্যে তিনি বলেন, গোয়ালন্দ উপজেলা বিনপি নেতাকর্মীদের সাথে কোন প্রকার আলোচনা, কর্মীসভা বা বর্ধিত সভা ছাড়াই টাকার বিনিময়ে আহবায়ক কমিটি দেয়া হয়েছে।

তিনি আরো বলেন, উক্ত আহবায়ক কমিটির একাধিক নেতা আওয়ামী লীগে যোগদান করে আওয়ামী রাজনীতির সাথে সক্রিয়। তারা নৌকা প্রতীকের পক্ষে জাতীয় নির্বাচনে প্রচারণা চালিয়েছেন।

এই ঘোষিত কমিটি বাতিল করে গঠন তান্ত্রিক ভাবে কর্মীসভা করে কমিটি ঘোষণার দাবি জানান তিনি।

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন, পূর্ব ঘোষিত যুগ্ন-আহবায়ক ও অব্যাহতি পাওয়া সদস্য সচিব মনজুরুল আলম দুলাল স্বাক্ষরিত কমিটির উপজেলা বিএনপির আহবায়ক সুলতান নুর ইসলাম মুন্নু, সদস্য সচিব নাজিরুল ইসলাম তিতাস,পৌর বিএনপির আহবায়ক এডভোকেট এবিএম ছাত্তার, সদস্য সচিব গোলাম মোন্তাহা রাতুল সহ ছাত্রদল, যুবদলের একাংশের নেতাকর্মী বৃন্দ।

এর আগে, গত (১৮ অক্টোবর) জেলা বিএনপির আহবায়ক কমিটির প্যাডে রাজবাড়ী জেলা বিএনপির আহবায়ক অ্যাডভোকেট লিয়াকত আলী ও সদস্য সচিব অ্যাডভোকেট কামরুল আলম-এর যৌথ স্বাক্ষরে উপজেলা বি.এন.পির আহবায়ক কমিটি অনুমোদন দেয়া হয়।

অভিযোগ প্রসঙ্গে গোয়ালন্দ উপজেলা বিএনপির আহবায়ক মো. নিজাম উদ্দিন শেখ বলেন, এই কমিটি গঠনতান্ত্রিক ভাবেই হয়েছে। জেলা আহবায়ক কমিটির আহবায়ক ও সদস্য সচিবের সাক্ষরেই কমিটি হয়েছে। “টাকার বিনিময়ে কমিটি হয়েছে” এ কথা উড়িয়ে দিয়ে তিনি বলেন এ কথা সম্পুর্ন মিথ্যা ও বানোয়াট। এটা আকান্তই তাদের মনগরা কথা। তারা কমিটিতে ভালো জায়গায় আসতে পারেনাই বিধায় এমন কথা বলে বেরাচ্ছে।

তিনি আরো বলেন, এর আগে জেলা আহবায়ক কমিটির সদস্য সচিব ও যুগ্ন-আহবায়কের সাক্ষরিত একটি কমিটি অবৈধভাবে দেয়া হয়েছিল। যা পরবর্তীতে সদস্য সচিবকে কেন্দ্রীয় বিনপির পক্ষ থেকে শোকজ করে তাকে পদ থেকে অব্যাহতি দিয়ে নতুন সদস্য সচিব নিয়োগ দেয়া হয়েছে।

উপজেলা বিএনপির সদস্য সচিব মোশাররফ আহমেদ টাকা খেয়ে গোয়ালন্দ উপজেলা বিএনপির আহ্বায়ক কমিটি দেওয়ার অভিযোগ নাকচ করে দেন। তিনি বলেন, এই দলে হাজার হাজার নেতা, লক্ষ লক্ষ কর্মী। দলের সকল সিদ্ধান্তে সবার মতানৈক্য না হওয়াটা অস্বাভাবিক কোন বিষয় নয়। সমস্ত প্রতিকূলতা কাটিয়ে ঐক্যবদ্ধ থেকে এগিয়ে যাবে বাংলাদেশের সর্ববৃহৎ এই দলটি।

Facebook Comments


এ জাতীয় আরো খবর
NayaTest.jpg